শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১১:৩০ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

তিতাসে বাতাকান্দি-রায়পুর রাস্তার সংস্কার কাজ ধীরগতি

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর, ২০২২

তিতাসে বাতাকান্দি-রায়পুর রাস্তার সংস্কার কাজ ধীরগতি।

মোঃ জুয়েল রানা/তিতাসঃ

কুমিল্লা তিতাস উপজেলার বাতাকান্দি টু রায়পুর যাতায়াতের প্রধান সড়কের সংস্কার কাজ চলছে। কাজ ধীরগতিতে চলার কারণে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পথচারী, চালক ও এলাকাবাসীদের।

এই রাস্তাটি দিয়ে উপজেলার বলরামপুর, কলাকান্দি, ভিটিকান্দি, নারান্দিয়া ইউনিয়নসহ পাশ্ববর্তী উপজেলা মুরাদনগর ও দাউদকান্দির কয়েকটি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে। কিন্তু রাস্তাটির একদিকে খানাখন্দ অন্যদিকে ঠিকাদার রাস্তাটি খুঁড়ে রাখায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দীর্ঘ এক যোগ এই রাস্তাটির বেহাল অবস্থা থাকার পরে সংস্কার কাজ শুরু হয় গত ৬ মাস পূর্বে। এতে এই অঞ্চলের লোকজনের ভেতর আশার আলো জাগে। কিন্তু ঠিকাদারের অবহেলার কারণে দুর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়,১৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের রাস্তাটির তিতাস উপজেলার কদমতলি হতে আসমানিয়া অংশে প্রায় তিন কিলোমিাটার রাস্তায় নিন্ম মানের ইটের সুড়কি ফেলে রোলার মেশিন দিয়ে ডলে রাখা হয়েছে। তার উপর দিয়ে যানবাহন চলাচলের কারণে ধুলাবালির পরিমাণ বেড়েছে বহু গুণ। এতে প্রতিদিনই ছড়িয়ে পড়ছে ধুলার দূষণ এবং নানা রোগে আক্রান্তের শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। হুমকির মধ্যে পড়েছে জনস্বাস্থ্য। এজন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকেই দায়ী করছেন সচেতন মহল ও পথচারী। এমনকি ঐ এলাকার আবাসস্থলও বসবাসের অযোগ্য হয়ে পরেছে।

আটোরিকশা চালক সুজন জানান, এ রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালালে গাড়ির টায়ার স্পিংসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে যায়। গাড়ি কাদ হয়ে পরে যায়। এছাড়াও ধুলাবালির কারনে সচরাচর আমরা এই রাস্তায় গাড়ি চালাই না।

পথচারী ও রাস্তার পাশে বসবাসকারীরা বলেন, রাস্তার কাজ ধীরগতি হওয়ায় আমাদের চলাচলে খুব কষ্ট হচ্ছে। এবং ধুলাবালির কারনে রাস্তায় চলাচলতো দুরের কথা বাড়িতে থাকায়টা অসম্ভব হয়ে পরেছে। এতে বিভিন্ন জনে নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

তিতাস উপজেলা প্রকৌশলী মোজাম্মেল হক বলেন, মালামালের দাম ঊর্ধ্বগতি হওয়ায় ঠিকারদার ধীরগতিতে কাজ করছে। আমরা দ্রুত কাজ শেষ করার জন্য চেষ্টা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ