রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩৮ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

দুদকে স্বপরিবারে হাজির হলেন এমপি জাফর আলম

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার।।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সমন্বিত কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ে হাজির হয়েছেন কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম ও তার পরিবার।
স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের হিসাব দিতে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় তারা দুদক কার্যালয়ে হাজির হন।
পরিবারের অন্য সদস্যরা হলেন- জাফর আলমের স্ত্রী শাহেদা বেগম, মেয়ে তানিয়া আফরিন ও ছেলে তানভীর আহমদ সিদ্দিকী তুহিন।
এর আগে ৪ সেপ্টেম্বর তাদের দুদক কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যক্রম থাকায় সেদিন তারা উপস্থিত থাকতে পারেননি। তবে ৩ সেপ্টেম্বর দুদকে চিঠি দিয়েই সাংসদ সদস্য জাফর বিষয়টি জানিয়েছিলেন। সেই আবেদনেই তারা ২০ সেপ্টেম্বর দুদক কার্যালয়ে আসেন।
দুদক সূত্র জানায়, কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমের ক্ষমতা ও প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে তার স্ত্রী শাহেদা বেগম সরকারি জমি, চিংড়ির ঘের, জলমহাল দখল, মাদক কারবার, চাঁদাবাজি এবং অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা সম্পদের মালিক হয়েছেন। এ অভিযোগ তদন্তের জন্য সংসদ সদস্য জাফর আলম ও তার স্ত্রী-সন্তানদের দুদক কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে।
তবে শাহেদা বেগমের দাবি, তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তার বিরুদ্ধে দুদকে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে।
স্ত্রীর সম্পদের অনুসন্ধানকে চিহ্নিত মহলের ষড়যন্ত্র বলে দাবি করে সংসদ সদস্য জাফর আলম বলেন, ৪ সেপ্টেম্বর চকরিয়া পৌরসভার আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল ছিল। এ কারণে আমি ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দুদকে সময় নিয়েছিলাম। আমরা আজ দুদক কার্যালয়ে উপস্থিত হয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ