বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

জবিতে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা, যানজটে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ শনিবার, ৩০ জুলাই, ২০২২

জবিতে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা, যানজটে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি।

গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার দ্বিতীয় ধাপে আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‌‌‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কেন্দ্রে পরীক্ষা দিবেন ১২ হাজার পরিক্ষার্থী। তবে পরীক্ষার্থীরা জবি কেন্দ্রে পৌঁছাতে যানজটের কারণে ভোগান্তিতে পড়ছেন বলে জানিয়েছেন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পুরান ঢাকার জনবহুল এলাকায় অবস্থিত হওয়ায় এমন সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল হওয়ায় এর সামনের রাস্তায় যানজট লেগে থাকে নিয়মিতই। গুলিস্তান থেকে সদরঘাট রোডে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় কেন্দ্রে পৌঁছাতে ভোগান্তিতে পড়েছেন শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছানোর জন্য ভর্তি পরীক্ষা কমিটির নির্ধারিত সময়ের ১ ঘন্টা পূর্বে কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশনা থাকলেও সময়মত পৌঁছাতে পারেনি অনেকেই।

সরেজমিনে দেখা যায়, রায়সাহেব বাজার মোড় থেকে সদরঘাট পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের রাস্তায় দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট। গণপরিবহনের বাসগুলোকে রায়সাহেব বাজার মোড় পর্যন্ত চলাচলের নির্দেশ দেয়া হলেও মানেনি তারা। চলছে সদরঘাট পর্যন্ত। এতে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি চরমে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মীরাও হিমশিম খাচ্ছেন যানজট নিরসনে।

ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা মিরপুর বাংলা কলেজের শিক্ষার্থী সুজন মাহমুদ বলেন, মিরপুর থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত আসতে আমার প্রায় ৩ ঘন্টা সময় লেগেছে। গুলিস্তান থেকে জবিতে আসতে আরও ১ ঘন্টা, রাস্তায় অনেক জ্যাম ছিল। সকাল সাড়ে সাতটায় বাসা থেকে বের হয়েছি, মাত্র পৌঁছালাম। যানজট নিরসনে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে আমাদের ভোগান্তি কম হতো।

আরেক ভর্তি পরীক্ষার্থী মাইলস্টোন কলেজের শিক্ষার্থী রায়হান বলেন, পরীক্ষাটা শুক্রবারে হলে ভালো হতো। রাস্তায় এখন প্রচুর যানযট। উত্তরা থেকে পুরান ঢাকা আসতে আসতেই প্রায় অসুস্থ হয়ে গেছি। এতোটা সময় তীব্র যানজটে বাসে আসা অনেক ভোগান্তির।

ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা সুমনা নামের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, মালিবাগ থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে আমাকে অনেক ভোগান্তিতে পরতে হয়েছে। রাস্তায় অনেক যানজট। গুলিস্তান আসার পর এদিকে আর ঢুকাই যায়না। বাসের পাশাপাশি রিক্সা রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি করেছে।

যানজটের বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, সমাধানের জন্য আমি আবারও দায়িত্বপ্রাপ্তদের সাথে কথা বলছি।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ