শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১২:১০ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

জলঢাকার আনন্দ মেলায় চলছে দেহ প্রদর্শনী ও জুয়া, বিপাকে অভিভাবকরা

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ১২ মে, ২০২২

জলঢাকার আনন্দ মেলায় চলছে দেহ প্রদর্শনী ও জুয়া, বিপাকে অভিভাবকরা।

স্বপ্না আক্তার/নীলফামারী :

নীলফামারীর জলঢাকায় চিত্তবিনোদনের জন্য বসানো হয়েছে আনন্দ মেলা। বসেছে সার্কাস, যাদু খেলা, পুতুল নাচসহ নানান প্রদর্শন। মেলার অন্তরালে চালানো হচ্ছে জুয়া, বসানো হয়েছে কেসিনো। আর সার্কাস, যাদু খেলা কিংবা পুতুল নাচের মঞ্চেই চলছে জমজমাট অশ্লীল নৃত্য। বিবস্ত্র দেহের নৃত্য দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন উঠতি বয়সের তরুণরা। ছুটছেন বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। মেলায় অশ্লীল বেহায়াপনা থেকে সন্তানদের মুক্তিপেতে চরম দুশ্চিন্তায় ওই এলাকার অভিভাবকরা। এমতাবস্থায় প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে বলে দাবী স্থানীয়দের।
জানা যায়, উপজেলার কালীগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বাজার উন্নয়নকল্পে আনন্দ মেলা ও সার্কাসের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেন কমিটির সভাপতি। জেলা প্রশাসক শর্ত সাপেক্ষে শুধুমাত্র সার্কাস ও আনন্দ মেলার জন্য গত ৪মে থেকে ১৩মে পর্যন্ত ১০দিনের অনুমতি প্রদান করেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সার্কাস, যাদু কিংবা পুতুল নাচ প্রদর্শনীর পরিবর্তে চলছে নারীদের বিবস্ত্র নাচ। বাহিরেও জমে উঠেছে জুয়ার আসর। মেলায় এসে সর্বোচ্চ হারিয়ে ফিরে যাচ্ছেন অনেকেই। ৩০মিনিটের অশ্লীল দেহের নাচ দেখতে জন প্রতি নেয়া হচ্ছে ৫০টাকা। স্টেজে এসে তরুণীরা একের পর এক খুলছেন শরীরের পোশাক। মেয়েদের স্পর্শ কাতর জায়গা গুলো দেখার লোভে দর্শকরাও ছুড়ে মারছেন টাকা। এতে প্রতিনিয়ত সর্বশান্ত হয়ে বাড়ি ফিরছেন শিক্ষার্থীসহ উঠতি বয়সের তরুণরা। শুধু উঠতি বয়সের তরুণরায় নয় জুয়া ও নারীর নেশায় মেতে উঠেছেন মধ্য বয়স্ক ও বৃদ্ধরা।
তাদের অশ্লীল নৃত্য কেউ যাতে মোবাইলফোনে ভিডিও করতে না পারে সেজন্য কঠোর তদারকিতে রয়েছেন আয়োজক কমিটির লোকজন। অজানা বসতঃ কেউ ভিডিও করলে তাৎক্ষনিক কেড়ে নেওয়া হচ্ছে তার মোবাইল। অপর দিকে মধ্যরাত পর্যন্ত উচ্চশব্দে গান বাজার কারনে ওই এলাকার আশপাসের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকদের মাঝে চরম ক্ষোপের সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক জানান,‘‘আগামী ২ জুন থেকে আমাদের ছেলে মেয়েদের শুরু হচ্ছে এসএসসি পরিক্ষা। এমতবস্থায় মধ্য রাত পর্যন্ত চলা গান বাজনার উচ্চশব্দে পরিক্ষার্থীরা ঠিকমত পড়াশোনা করতে পারছেনা। এ ব্যপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন তারা। আনন্দ মেলা ও সার্কাসের নামে জমজমাট অশ্লীল নৃত্য চলার বিষয়ে আয়োজক কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি সাংবাদিকদের বলেন,‘‘ অশ্লীলতা বলতে আপনারা কি বুঝেন,ঢাকায় মেয়েরা হাফ প্যান্ট পড়ে ঘুরলে অশ্লীলতা হয় না ? আমাদের মেলার বেলায় যত কথা।’’ এ বিষয়ে ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতির আপন চাচা মশিউর রহমান বলেন,‘‘ আমার জানামতে মেলায় কোন অশ্লীলতা হচ্ছে না,তবে আসেন কথা হবে।’’ থানা অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ কবীর বলেন,‘‘ মেলা বা সার্কাসের নামে অশ্লীলতা চালালে তা চলতে দেওয়া হবে না,তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান বলেন,‘‘ শুধূমাত্র সার্কাস ও আনন্দ মেলার জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয় ১০ দিনের অনুমতি প্রদান করেছেন,সেখানে কোন প্রকার অশ্লীলতা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’’
জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন বলেন,‘‘ এ রকম একটি অভিযোগ পেয়েছি,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে। মেলায় কোন প্রকার বেআইনী কার্যকালাপ চলতে দেওয়া হবে না।’’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ