শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

কক্সবাজারের খুরুস্কুল আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে সেনাপ্রধান শফিউদ্দিন আহমেদ

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ শনিবার, ৭ মে, ২০২২

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার।। 

বাংলাদেন সেনাবাহিনী প্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ শনিবার (৭ মে) কক্সবাজারে বাস্তবায়নাধীন জলবায়ু উদ্বাস্তুদের বিশেষায়িত আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন।

শনিবার দুপুর ১২ টা সময় সেনাপ্রধান কক্সবাজার সদরের খুরুস্কুল আশ্রয়ণ প্রকল্পে পৌঁছালে প্রকল্পোর সার্বিক চিত্র তোলে ধরেন ৩৪ কনস্ট্রাকশন বিগ্রেডের কমান্ডার বিগ্রডিয়ার জেনারেল মাসুদুর রহমান।
এসময় সেনাপ্রধান বলেন, ইতোমধ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৩০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ( ২০২০ সাল) জুন মাসে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।
এসময় লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, এসজিপি, পিএসসি, প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার,
সশস্ত্র বাহিনী বিকাশ; লেফটেন্যান্ট জেনারুেল মােঃ সাইফুল আলম, এসবিপি, এএসপি, এসইউলি, এডব্লিউসি, পিএসসি, কোটার
মাষ্টার জেনারেল; মের জনকেল এফ এম জাহিদ হােসেন , এএফডব্লিউসি, পিএসসি, চিফ কনসালট্যান্ট জেনারেল, এডহক
কনস্ট্রাকশন সুপারভিশন কনসালটেন্ট মেজর জেনারেল মােঃ মােশফেকুর রহমান, এসজিপি, এসইউপি, এনডিসি, পিএসসি,
আমজুটেন্ট জেনারেল সই সেনাসদরের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ ও সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং মেজর জেনারেল ফখরুল আহসানসহ উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কক্সবাজার আন্তর্জাতিক মানের বিমান বন্দর সম্প্রসারণের কারণে কক্সবাজার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সমিতি পাড়া ও কুতুবদিয়াপাড়া এলাকায় আশ্রয় নেয়া জলবায়ু উদ্বাস্তুদের জন্যে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ শ’ ৩৩ কোটি ৬২ লাখ টাকা। যেখানে স্থায়ী মাথা গোজার ঠাঁই পাবে জলবায়ু উদ্বাস্তু ৩৮৩১৮টি পরিবার।
প্রকল্পে থাকবে ১৩৯ টি পাঁচতলা ভবন,যার মধ্যে তৈরী হওয়া ২০ টি ভবনে ৬০০ পরিবারকে ২০২০ সালে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে দলিলসহ একটি করে ফ্ল্যাট। বাকী ১১৯ টি ভবন নির্মানের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে আসেন সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।
এদিকে, আন্তঃবাহিনী জনসংযােগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এর প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রকল্পটি ১৪ নভেম্বর ২০২০ তারিখে একনেক সভায় অনুমােলিত হয়। প্রকল্পের মূল কার্ধক্রমের মধ্যে পাইল ফাউন্ডেশন দিয়ে ১১৯টি ৫ তলা ভুবন নির্মাণ
অন্যতম। এছাড়াও এই প্রকল্পের আওতায় ধর্মীয় উপাসনালয়, ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র, খেলার মাঠ এবং লিঙ্গ পানি সরবরাহের
ব্যবস্থাসহ বিবিধ সুবিধাদি নির্মাণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনষ্ট্রাকশন ব্রিগেড কর্তৃক প্রকল্পটি বাস্তবায়ন
করা হচ্ছে। আগামী জুন ২০২০ এর মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে আশা করা যায়। সেনাবাহিনী প্রধান নির্ধারিত
সময়ে মানসম্মত নির্মাণকাজ সম্পন্ন করার বিষয়ে শুরুত্বারােপ কৰেছেন।
পরবর্তীতে তিনি উখিয়া ইনানী এবং মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন হিমছড়িতে সেনাবাহিনীর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম ঘুরে দেখেন।
কাজের বর্তমান অগ্রগতি সম্পর্কে খোঁজখবর নেন এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে প্রয়ােজনীয় দিকনিদের্শনা প্রদান করেন।
এ সময়ে সেনাবাহিনী প্রধান, দেশের ভৌত অবকাঠামোগত নির্মাণে নিয়ােজিত সকল স্তরের সেনা সদস্যদের কার্যকরী ভূমিকা রাখায়,তাদেরুকে ধন্যবাদ জানান এবং ভুয়সী প্রশংসা করেন। ‘সমরে আমরা শান্তিতে আমরা’, এ মূলমন্ত্রকে ধারণ করে ভবিষ্যতেও
বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশের উন্নয়নে আগামী ভুমিকা রাখবে বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ