শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

চরফ্যাশনে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে চেয়ারম্যানের উপর সন্ত্রাসী হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ভোলা
প্রকাশকালঃ বুধবার, ৪ মে, ২০২২

চরফ্যাশনে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে চেয়ারম্যানের উপর সাবেক চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ উঠেছে। গত মঙ্গলবার (৩মে) বিকেলে চরফ্যাশন উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের মুন্সিরহাট বাজারে ইউপি চোরম্যান আলমগীর হাওলাদার স্থানীয় বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে গেলে ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন লিখনের নেতৃত্বে হামলার ঘটনায় ৩০জন আহত হয়েছে বলে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হাওলাদার অভিযোগ করেন। আহতদের উদ্ধার করে চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত একজনকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। এঘটনায় মুন্সীরহাট বাজারে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আহত নুরুল হুদা (৩০) বলেন, বিকেলে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বর্তমান চেয়ারম্যান শুভেচ্ছা বিনিময় করার সময় পাশেই সাবেক চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন লিখন ও তাঁর লোকজন একটি ক্লাব উদ্বোধন করছিলেন। এসময় বর্তমান চেয়ারম্যান আলমগীর হাওলাদারকে একা পেয়ে লিখনের নেতৃত্বে তাঁর ভাই টুটুল,ফারুক ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদকসহ অর্ধশতাধীক লোকজন নিয়ে হামলা করে। এসময় স্থানীয় বাজারের ব্যবসায়ীরা চেয়ারম্যানকে হেফাজত করতে গেলে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ পাল্টা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ৪ঘন্টা ধরে ওই এলাকায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ৩০জন আহত হয়। হামলায় প্রায় ১০টি মটর সাইকেল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। হামলা পরবর্তী স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও দুলারহাট থানা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে শোডাউন ও সমাবেশ করেন চেয়ারম্যান আলমগীর হাওলাদার। তিনি অভিযোগ করে বলেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন লিখন স্থানীয় বিএনপি’র সন্ত্রাসীদের নিয়ে একটি ক্লাব উদ্বোধনের সময় আমি ওই এলাকায় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা সাক্ষাত করছিলাম। এসময় স্থানীয়দের জিজ্ঞেস করি এটা কিসের ক্লাব আর তাতেই লিখন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী পূর্ব পরিকল্পীতভাবে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে অস্ত্র ও লাঠিঁসোঠা দিয়ে হামলা করে। এসময় তাদের অস্ত্র ও ইটের আঘাতে আমি ও আমার দলীয় কর্মী এবং সমর্থকরাসহ আহত হই। আমি এই সন্ত্রাসীদের আইনের মাধ্যমে সুষ্ঠ বিচার কামনা করি। এ অভিযোগ অস্বিকার করে সাবেক চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন লিখন বলেন, আমি ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠানে গেলে আলমগীর হাওলাদার ও তাঁর লোকজন আমাদের উপর হামলা করে আমার ১০-১২জনকে আহত করে। আমাদের লোকদের হাসপাতালে নিতে বাঁধা দিয়ে আমাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। দুলারহাট থানার ওসি মোরাদ হোসেন বলেন,আইন সৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ মোতয়েন করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ