রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

হিজাব পড়ায় ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ৩ মে, ২০২২

হিজাব পড়ায় ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ।

স্বপ্না আক্তার/নীলফামারী:

নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের বিরুদ্ধে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। এবিষয়ে নাউতারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের ভাই প্রতিষ্ঠান প্রধান মাহমুদুল হাসান নয়নের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শিশুটিকে যৌন হয়রানির ঘটনায় ক্ষুব্ধ অভিভাবকরাও। তবে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ভুক্তভোগী শিশুর পরিবারটিকে নানান হুমকি দিচ্ছেন প্রভাবশালী ওই প্রতিষ্ঠান প্রধানের বিভিন্ন লোকজন।জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার নাউতারা নিজপাড়া সোনামনির ডাঙ্গা মডেল স্কুল এ্যান্ড কলেজে ভুক্তভোগী শিশুটি গণিত পরিক্ষা দিতে এসেছিল। ৫ম শ্রেণীর ১ম সাময়িকের এই গণিত পরিক্ষাই যেনো তার কাল হয়ে দাড়িয়েছে। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে হিজাব পড়া প্রথা উঠে দিতে প্রতিষ্ঠান প্রধান বর্বরতার পরিচয় দিয়েছে। হিজাব পড়ার অপরাধে শিশুটির কাছে গিয়ে স্পর্শ কাতর জায়গা গুলোতে হাত দেয় ওই দুশ্চরিত্র লম্পট শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটনার পর কান্নায় ভেঙে পড়া ওই শিক্ষার্থী বাড়িতে গিয়ে মায়ের কাছে তুলে ধরেন অনৈতিক কার্যকলাপের কথা। শিশুটির বাবাও জীবিকার তাগিদে পারি জমিয়েছেন উত্তরের জেলা গাইবান্ধায়। সেখান থেকে ঈদের ছুটিতে বাড়ি ফিরে দেখে মেয়ের মন খারাপ। মেয়েকে মন খারাপের কথা জিজ্ঞেস করলে তার মায়ের কাছ থেকে জানতে পারে লম্পট শিক্ষকের কু-কৃত্তির কথা। শুনার সাথে সাথেই ওই শিক্ষককে মোবাইল ফোন দিয়ে কল করলে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। পরে ডিমলা বাজারে সন্ধ্যায় ওই শিক্ষকের দেখা করতে যায় শিশুটির বাবা। তবে মেয়েকে যৌন হয়রানির কারণ জানতে চাইলে, কোন উত্তর না দিয়ে সেখান থেকে দ্রুত সরে যায় লম্পট শিক্ষক। ভুক্তভোগী শিশু শিক্ষার্থীটির বাবা বলেন, আমরা সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য পাঠশালায় পাঠিয়ে থাকি। কিন্তু বিশ্বাস করবো কাকে? যেখানে শিক্ষা গুরুর কাছে সন্তানরা নিরাপদ থাকে না। সেই শিক্ষা গুরুই আমাদের সন্তানদের ক্ষতি করার চিন্তা করছে। আমলে আমার মেয়ের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনাটি একদম মেনে নেওয়ার মতো না। আমরা এই দুশ্চরিত্রবান শিক্ষকের বিচার চাই। যাতে আর কোন দিন কোন বাপের সন্তানকে শিক্ষকদের কাছ থেকে যৌন হয়রানির শিকার হতে না হয়। তিনি আরও বলেন, আমার মেয়ের কাছ থেকে জেনেছি, ওই শিক্ষক আমার মেয়েকে বেশ কিছু দিন ধরে একাই তার রুমে যেতে বলে। কিন্তু আমার মেয়ে তার ডাকে কোন সারা দেয় নাই। সে তার উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য হিজাব পড়াকে কেন্দ্র করে আমার মেয়ের স্পর্শ কাতর জায়গা গুলোতে হাত দিয়ে যৌন হয়রানি করেছে। তবে এর সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে ডিমলা থানা কর্মমর্তাদের অবগত করা হয়েছে।
এ বিষয়ে ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ লাইসুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি করা হয়েছে মর্মে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সপেক্ষে অভিযুক্ত ব্যক্তির আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ