শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৫:৩৯ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

টেকনাফে মাসব্যাপী বিয়ের আয়োজনকারী ইয়াবা ডন রাসেল অবশেষে গ্রেফতার

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার।।

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার সাবরং ইউনিয়নের সিকদার পাড়ার ইয়াবা ডন
রাসেলকে আটক করা হয়েছে। আটক।
বুধবার ২৭ এপ্রিল ভোর ৪ টার সময় ছোট হাবির পাড়াস্থ বোনের বাড়ী থেকে তাকে আটক করেন মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোন।
গত ২৪ মার্চ সেন্টমার্টিনের ছেড়া দ্বীপে একলাখ পিস ইয়াবা ও এককেজি আইস উদ্ধারের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে
টেকনাফ থানা মামলা নং-৭৯
দায়ের করেন ডিএনসি। এই মামলার আসামী পলাতক রাসেলকে গ্রেফতারে চেস্টা চালিয়ে আসছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

জানা গেছে, ইয়াবার গডফাদার মো. রাসেল (৩২) ( পিতা মৌলভি আবদুল গফুর) তার ভগ্নিপতি ৭ নং ওয়ার্ড ছোট হাবির পাড়াস্থ প্রবাসী শামসুল আলমের বাড়িতে আত্মগোপনে আছে। ২৭ এপ্রিল ভোর ৪ টায় উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোনের সাব-ইন্সপেক্টর তুন্তুমনির নেতৃত্ব একটি টীম সৌদি প্রবাসী শামসুল আলমের বাড়ি ঘেরাও করে তার বসতঘরের ভিতর থেকে মো রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়।
বুধবার সকালে তাকে কক্সবাজারের বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে
বলে জানিয়েছেন মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোনের সহকারী পরিচালক সিরাজুল মোস্তফা।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সীমান্ত উপজেলা টেকনাফের সাবরাংয়ে গত মার্চ মাসে দীর্ঘ একমাস ব্যাপী চলে মাদক ব্যবসায়ী রাসেলের বিয়ে আয়োজন।
কোটি টাকা খরচ করে বিভিন্ন মামলায় পলাতক থেকেও মাস ব্যাপী ঝমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে ১৫ মার্চ রাজকীয় বিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করে।
প্রতি রাতেই জমকালো আতশবাজির বিকট শব্দ আর নর্তকীদের নাচ, গানের আয়োজনে এলাকাবাসীকে অতিষ্ঠ এবং রাতে ঘুম হারাম করে তুলেছিল এই রাসেল। এই রাসেল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ডন।
তার বিরুদ্ধে ডজনাধিক মামলা রয়েছে।
টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ কতৃক ৬০ হাজার ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় ইয়াবার মালিক রাসেল হওয়ায় তার বিরুদ্ধেও মামলা করে পুলিশ।
এরআগে ২৪ মার্চ সেন্টমার্টিনের ছেড়া দ্বীপে একলাখ পিস ইয়াবা ও এক কেজি মেথ আইস উদ্ধারের ঘটনায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোন তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছিল। বিয়ের দেড় মাস না পেরোতে টেকনাফ ডিএনসির হাতে গ্রেফতার হলেন এই মাদক ব্যবসায়ী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ