মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

কেনাকাটার সময় বাগবিতণ্ডা, ঢাকা নিউমার্কেটে ব্যবসায়ী-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২২

কেনাকাটার সময় বাগবিতণ্ডা, ঢাকা নিউমার্কেটে ব্যবসায়ী-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ

কাজী আনিস: রাতে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের সাথে সংঘর্ষ নিয়ে নানান গুজবের মধ্য দিয়ে আসল ঘটনা যেটা জানা যায়, নিউমার্কেটে একটি খাবারের দোকানে অস্বাভাবিক বেশি বিল চাওয়া নিয়ে ঢাকা কলেজের দুজন শিক্ষার্থীর সাথে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে তাদের আটকে রেখে শারীরিকভাবে বেদম প্রহার ও ছুরিকাঘাত করা হয়। সে খবর কলেজ ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে স্বভাবতই ছাত্ররা উত্তেজিত হয়ে এগিয়ে এলে ব্যবসায়ী ও স্টাফদের সাথে শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ শুরু হয়।

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ও তার দুই সহপাঠীর সঙ্গে বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে দোকান কর্মচারী ওই দুই শিক্ষার্থীকে ছুরি দিয়ে আঘাত করেন।এতে লিটন আহত ও রক্তাক্ত হলে ঢাকা মেডিকেল পাঠানো হয়,তাৎক্ষণিক খবরটি ১৮এপ্রিল সোমবার রাত সাড়ে দশটায় ক্যাম্পাসে জানাজানি হলে ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ শুরু করেন।পরবর্তিতে শিক্ষার্থীদের সাথে
ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের দাবি,পুলিশ সংঘর্ষের সময় উপস্থিত হলেও তারা ঘটনাস্থলে না এসে,মূল কারণ না জেনেই শুরু থেকেই ব্যাবসায়ী ও রোডের হকারদের পক্ষ নিয়ে তাদের কে আড়াল করে, ছাত্রদের উপর হামলা শুরু করে। অন্যদিকে পুলিশের নিউমার্কেট জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার শরীফ মুহাম্মদ ফারুকুজ্জামান দাবি করেন যে,সংঘর্ষ শুরুর পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিউমার্কেট এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। দুই পক্ষের মাঝখানে অবস্থান নিয়ে পুলিশ সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে।ছাত্ররা ঢাকা কলেজের ছাদ থেকে ঘন্টাব্যাপী পুলিশের উপর ইট ছুড়তে থাকে,ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করতে হয়েছে,এবং বাধ্য হয়ে সারারাত ছোড়া হয়েছে একাধিক রাবার বুলেট ও টিয়ার শেল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, রাত ১০টায় ঢাকা কলেজের তিন শিক্ষার্থী নিউমার্কেটে কাপড় কিনতে গেলে দোকানীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় তিন শিক্ষার্থীকে মারধর করে ব্যবসায়ীরা। পরে ঢাকা কলেজের আবাসিক শিক্ষার্থীরা নিউমার্কেট এলাকায় এসে ভাংচুর চালায়। শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ।

সেখানে থাকা অনেক স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেন যে, “নিউ মার্কেটের বাইরে ও ভিতরের দোকানি ও কর্মচারীদের ব্যবহার খুবই খারাপ, ক্রোতা-বিক্রেতার মাঝে দরকষাকষি নিয়ে মনোমালিন্য স্বাভাবিক বিষয়। আর ঢাকার নিউমার্কেটে শপিং করতে গিয়ে দামাদামি নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়নি, এমন মানুষ পাওয়া দুস্কর। সেখানকার দোকানদার, বিশেষত অল্পবয়সী স্টাফদের আচার-ব্যবহার, অশ্লীল বাক্য বিনিময় সম্পর্কে সবাই কমবেশি অবগত! বাইরের সাধারণ মানুষ এসব নিরবে সহ্য করলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা ফিডব্যাক দেয় বলে বাকবিতন্ডা, হাতাহাতির ঘটনাও হরহামেশাই ঘটে।”

সংঘর্ষের মধ্যে ওই এলাকায় মিরপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশের হস্তক্ষেপে ভোর ৫ টায় ধিরে ধিরে পরিবেশ শান্ত হয়ে আসে। অন্যদিকে রাত দেড়টায় পুলিশের গুলিতে আহত হয় লিটন নামের এক শিক্ষার্থী, তাকে ঢাকা মেডিকেল থেকে ফিরিয়ে দিলে স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউ তে ভর্তি করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ