শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

শিবালয়ে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও অশ্লীল ছবি প্রকাশে গ্রেফতার ২

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২

শিবালয়ে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও অশ্লীল ছবি প্রকাশে গ্রেফতার ২।

এস কে সুমন মাহমুদ/মানিকগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:

মানিকগঞ্জের শিবালয়ের তেওতা একাডেমীর দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর অশ্লীল ছবি তুলে ফেসবুক-ইউটিউবে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় দু’জন কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন – উপজেলার শিবরামপুর বাড়ী গ্রামের তুহিনুজ্জামান তপুর পুত্র ধর্ষক পারভজ মোশারফ ওরফে সামিউল ইসলাম সামি (২২) এবং পার্শ্ববর্তী ঘিওর উপজেলার শ্রীবাড়ী গ্রামের মৃত পল্লব সরকারের পুত্র তাপস সরকার (১৯)।
মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, ভিকটিম গত ২ মার্চ বুধবার বিকেলে টেপড়া সাকিনস্থ ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমডালা গামী রাস্তার মুখে পৌছামাত্র সামি ভিকটিমকে বিভিন্ন ধরনের প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে রিক্সায় নিয়ে টেপড়া কালীবাড়ীর দিকে নিয়ে যায়। পথিমধ্যে তাপস অপর একটি রিক্সা নিয়ে আসে এবং ভিকটিমকে রিক্সায় উঠিয়ে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঔ রাতে শিবরামপুর সাকিনস্থ স্রষ্টার মোড়ের পাশে পরিত্যাক্ত মেঝে পাকা টিনের ঘরের ভিতর নিয়ে গিয়ে আসামী সামি ভিকটিমের পড়নের ফ্রগ টানা হেচড়া করিয়া ছিড়ে জিন্স প্যান্ট খুলে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে সামি তাপস ভিকটিমকে ঘিওর থানাধীন সাহেব বাড়ী প্রজেক্টের পুকুর পাড়ে খেজুর গাছের পাশে নিয়ে পূনরায় পালাক্রমে ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে এবং কৌশলে মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও ধারন করে। এমনকি এ বলে হুমকি প্রদান করে যে, এ বিষয়ে কাউকে কিছু বললে ধারনকৃত ভিডিও ফেসবুক ও ইউটিউভে ছেড়ে দিবে। এ ছাড়াও ভিকটিমের নিকট থাকা মোবাইল সেট ও নগদ টাকা নিয়া টেপড়া বাস স্ট্যান্ডে আনিয়া একটি রিক্সায় উঠিয়ে আমডালা সাকিনস্থ বাদীর বোনের বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়। ভিকটিম উক্ত ঘটনা বাদীর বোন ও বাদীকে জানাইলে তাহারা লোকলজ্জার ভয়ে গোপন রাখেন। পরবর্তীতে উক্ত ধর্ষক সামি ও তাপস ভিকটিমকে পূনরায় কাছে ডাকে ও টাকা দাবি করে। তাদের ডাকে সারা না দেয়ায় গত ১০ এপ্রিল রোববার ভিকটিমের অশ্লীল ছবি তারা ফেসবুক-ইউটিউবে ছেড়ে দেয়।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে শিবালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শাহিন জানান, ধর্ষণের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শেখ ফরিদ আহম্মেদ সঙ্গীয় ফোর্সের সহায়তায় আসামীদের গ্রেফতারসহ খোয়া যাওয়া মালামাল উদ্ধার করেছেন। সোমবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের রিমান্ড আবেদনসহ কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। ভিকটিমের মেডিক্যাল পরীক্ষা ও জবানবন্দী রেকর্ডের জন্য বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ