রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:১৮ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

চাঁদার জন্য সিএনজি চালককে রক্তাক্ত করলো শ্রমিক নেতা!

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ শনিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২২

মো. জাফর আলম, কক্সবাজার।।

মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশের কঠোর হুশিয়ারির পরেও কক্সবাজারের ঈদগাঁও বাসস্ট্যান্ডে চাঁদার জন্য আবদুল মালেক নামের এক সিএনজি চালককে মেরে রক্তাক্ত করেছে কথিত এক শ্রমিক নেতা।
শনিবার বিকাল ৪ টার সময় ভাই ভাই হোটেলের সামনে এঘটনা ঘটেছে।
ঘটনায় জড়িত আবু তাহের মুন্নাকে অভিঢ়ুক্ত করে রক্তাক্ত ওই সিএনজি চালক আইনগত প্রতিকার চেয়ে ঈদগাঁও থানায় এজাহার দায়ের করেছে বলে জানা গেছে।
জানা যায়, ঈদগাঁও ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম গজালিয়া গ্রামের আলী আকবরের ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক আবদুল মালেক শনিবার বিকাল ৪ টার সময় গাড়ীসহ বাসস্ট্যান্ডের ভাই ভাই হোটেলের সামনে অবস্থান করছিল।
এসময় একই ইউনিয়নের খোদাইবাড়ী গ্রামের মৃত আবু মিয়া সওদাগরের ছেলে আবু তাহের মুন্না ১০০ টাকা চাঁদা দাবী করেন। দাবীকৃত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে গালমন্দ ও এলোপাতাড়ি মারধর করেন। মুখের বাম পাশে সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম করে।আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে।

আবু তাহের মুন্নাকে টাকা না দিলে ঈদগাঁও বাসস্ট্যান্ডে সিএনজি রেখে ভাড়া মারতে দিবেনা বলে হুমকি দিয়ে চলে যান।
তাকে হাসপালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করানো হয়।
এব্যাপারে আবু তাহেরকে অভিযুক্ত করে ঈদগাঁও থানায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানিয়েছেন থানার ডিউটি অফিসার।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এই আবু তাহের মুন্না করোনার সময়ও পরিহণ থেকে চাঁদাবাজি কালে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ অভিযান চালিয়ে আটক করেছিল। এঘটনায় একটি মামলাও দায়ের করা হয়েছিল। যেটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ