মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বর্জনের মধ্যে দিয়ে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ রবিবার, ২৭ মার্চ, ২০২২

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বর্জনের মধ্যে দিয়ে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত।

আব্দুর রহিম/সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি :

সারাদেশের ন্যায় শনিবার ছিল বাঙালির গৌরব এর ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। বীর মুক্তিযোদ্ধারা দীর্ঘ ৯ মাস জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে একটি লাল-সবুজ খচিত স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা এনে দিয়েছিল।
এবার ব্যতিক্রমভাবে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলাম প্রজ্ঞাপনের দোহাই দিয়ে এবার স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আমন্ত্রণ না জানানোর প্রতিবাদে শনিবার ২৬ শে মার্চ কালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধারা অনুষ্ঠান বর্জনের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী নানা আয়োজনে দিবসটি উদযাপিত হলেও ছিল না কোন উৎসবের আমেজ।

দিনব্যাপী কর্মসূচির অনুষ্ঠানে দেখা মেলেনি কোন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের। অনুরূপ ভাবে উপজেলা আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মী, এমনকি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান যুবলীগ সভাপতি নাজমুল আহসান সহ আওয়ামী লীগের কাউকে অনুষ্ঠানে দেখা মেলেনি উপজেলা পরিষদ মাঠে।
কুচকাওয়াজ ও স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের শারীরিক কসরত অনুষ্ঠান শেষে বেলা ১০টার সময় বীর মুক্তিযোদ্ধারা অনুষ্ঠানে নাই কেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলাম বলেন প্রজ্ঞাপনের নির্দেশনা মেনে করা হয়েছে।বিস্তারিত জানতে অফিসে কথা বলতে বলেন। পরে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা পরিষদের মিলনায়তন ভবনের পাশে সমবেত মুক্তিযোদ্ধাদের নিকট ক্ষমা চাইলে বীর মুক্তিযোদ্ধারা সরকারের প্রতি সম্মান দেখিয়ে সরকারের দেওয়া সম্বোর্ধনা গ্রহণ করে চলে গেলেও দিনভর কোন অনুষ্ঠানে দেখা মেলেনি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের।

কালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শনিবার দিনব্যাপী মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনব্যাপী নানান কর্মসূচির মাধ্যমে পালিত হয়েছে। দিনের কর্মসূচির মধ্যে ছিল ভোরের সূর্যোদয়ের সাথে সাথে থানা চত্বরে ২১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা করা হয়। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে সব সরকারি-বেসরকারি আঁধা-সরকারি ভবন স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা হাট-বাজার দোকান অফিস-আদালত ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ৭টায় সরোয়ারদী
পার্ক মাঠে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধে বিজয় স্তম্ভ তে পৃথক পৃথকভাবে উপজেলা প্রশাসন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা এনজিও প্রতিষ্ঠান সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা পুষ্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে সহকারী কমিশনার( ভূমি) রোকনুজ্জামান বাপ্পি, উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দিপালী রানী ঘোষ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষে মথুরেশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিমের নেতৃত্বে বীর মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ, মনির হোসেন অজিহার রহমান সহ মুক্তিযোদ্ধাগণ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার নরিম আলী মুন্সী এবং তারালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হোসেন ছোট এর নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ সহ যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষকলীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, তাঁতী লীগ সহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এছাড়াও বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন, স্কুল-কলেজ এনজিও, জাতীয় পার্টি বিএনপি সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ, স্কুলের ছাত্র, ছাত্রীরা পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

সকাল সাড়ে৮টায় উপজেলা পরিষদ মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কালিগঞ্জ সার্কেল) আমিনুর রহমান, থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা এবং উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দিপালী রানী ঘোষ উপস্থিত থেকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দার, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলাম প্রমূখ। বক্তব্য শেষে বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সমন্বয়ে এবং পুলিশ আনসার, ভিডিপি ফায়ার সার্ভিস, গার্লস গাইড স্কাউটদের এক মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
বেলা ১১ টায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। বাদ জোহর বিভিন্ন মসজিদে দেশ ও জাতির সম্বৃদ্ধি এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিকাল ৪টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রীতি ফুটবল খেলা এবং লেডিস ক্লাব চত্বরে মহিলাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। রাত সাড়ে ৭টায় উপজেলা পরিষদ মাঠ চত্বরে আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার রবিউল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলহাজ্ব ডাক্তার আ ফ ম রুহুল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) রোকনুজ্জামান বাপ্পি, সাবেক অধ্যাপক গাজী আজিজুর রহমান প্রমূখ। আলোচনা সভা শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।

মুক্তিযোদ্ধাদের উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহান স্বাধীনতা দিবসের বিভিন্ন অনুষ্ঠান বর্জনের বর্জনের বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযুদ্ধা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে সাংবাদিকদের জানান অনুষ্ঠানে আমাদের জাতীয় পতাকা উত্তোলনে আমন্ত্রণ জানায়নি এতে করে মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান করা হয়েছে এর প্রতিবাদ স্বরুপ আমরা উপজেলা প্রশাসনের সকল অনুষ্ঠান বর্জন করেছি। সম্বর্ধনার বিষয়ে তিনি জানান যেহেতু সরকারিভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা জানানো হয় সে কারণে সরকারের সম্মানার্থে আমরা শুধুমাত্র সম্বর্ধনা গ্রহণ করেছি আর কোনো কর্মসূচিতে আমরা বীর মুক্তিযোদ্ধারা অংশগ্রহণ করি নাই। ওই সময় মুক্তিযোদ্ধারা সাংবাদিকদের আরও জানায় ২০১৭সাল হতে কালিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমিটি নাই। কিন্তু প্রত্যেকটি জাতীয় অনুষ্ঠানে তাদেরকে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সময় আমন্ত্রণ জানালেও এবার তার ব্যতিক্রম ঘটেছে। তাহলে সে সময় প্রজ্ঞাপন কোথায় ছিল? উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে আপনারা জিজ্ঞাসা করুন। ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস পালন উপলক্ষে নলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পৃথক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। নলতা কে বি এ রেসিডেন্সিয়াল কলেজ মাঠ ময়দানে দিনব্যাপী উক্ত কর্মসূচিতে নলতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী, সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অধ্যাপক ডাক্তার আ ফ ম রুহুল হক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কালিগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার নরিম আলী মুন্সি, সাধারণ সম্পাদক ও তারালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হোসেন ছোট, নলতা ইউনিয়নের লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন পার, নলতা রেসিডেন্সিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ তোফায়েল আহমেদ নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোনায়েম হোসেন চাম্পাফুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক গায়েন নলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান প্রমূখ।

উক্ত অনুষ্ঠানে সাতক্ষীরা ৪ আসনের আংশিক কালীগঞ্জের ৪টি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ মাদ্রাসার, ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত সহ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হয়। দিনভর বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও গতকাল ২৭মার্চ রাতে দেশ বরন্য শিল্পী নকুল কুমার বিশ্বাস এবং সোহাগের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুদিনের অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নিজ নিজ উদ্যোগে দিনভর জানান কর্মসূচিতে দিবসটি পালিত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ