শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

নীলফামারীতে সহকারী কাজিদের উপদ্রব বৃদ্ধি পাওয়ায় বাড়ছে বাল্যবিবাহ্

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ, ২০২২

নীলফামারীতে সহকারী কাজিদের উপদ্রব বৃদ্ধি পাওয়ায় বাড়ছে বাল্যবিবাহ্।

স্বপ্না আক্তার/নীলফামারী:

ইউনিয়ন পর্যায়ে একজন কাজী থাকার কথা থাকলেও আছেন তিন থেকে চারজন। আবার তাদেরও রয়েছে সহকারী কাজী পাঁচ থেকে সাত জন। এজন্য দিন দিন হু-হু করে বাড়ছে বাল্যবিবাহের সংখ্যা। তবে বাল্যবিবাহের কারণ হিসেবে দরিদ্রতা ধরা হলেও জনসচেতনতার অভাবকে করা হচ্ছে দায়ী। আবার সহকারী কাজিরা অর্থের লোভে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে রেজিষ্ট্রার করাচ্ছেন বাল্যবিবাহ্।
মঙ্গলবার(১৫মার্চ) দুপুরে নীলফামারী সদর উপজেলা হলরুমে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক সমন্বয় সভায় বক্তরা এসব কথা তুলে ধরেন। সামাজিক ক্ষমতায়ন ও সুরক্ষা কর্মসূচির (সেল্প) এর সহযোগিতায় সভায় সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন নাহার।
এসময় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আহমদ আহসান হাবীব, ব্র্যাকের জেলা সমন্বয়কারী আকতারুল ইসলাম, জেলা ব্যবস্থাপক মাইকেল বাস্কে, সামাজিক ক্ষমতায়ন ও সুরক্ষা কর্মসূচির অফিসার আবু তাহেরসহ বিভিন্ন এনজিও কর্মকর্তা ও সদর উপজেলার কচুকাটা, পঞ্চপুকুর, চাপড়া সরমজানি, কুন্দুপুকুর, টুপামারি, সংগলশীসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও নিকাহ্ রেজিষ্টার উপস্থিত ছিলেন।
সভায় পল্লীশ্রীর প্রকল্প সমন্বয়কারী তাইবাতুন নাহার বলেন, সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের একই পরিবারের ৫ভাই নিকাহ্ রেজিষ্টারের কাজ করেন। তাদের কেউ পরিচয় দেন না কে আসল আর কে নকল। এভাবে অন্যান্য ইউনিয়ন পরিষদ গুলোতেও দেখা যায় বেশ কয়েকটি কাজী। প্রয়োজনের তুলনায় সহকারী কাজিরা বেশী থাকায় দিন দিন বাড়ছে বাল্যবিবাহের হার।
নীলফামারী পৌর এলাকার নিকাহ্ রেজিষ্টার আব্দুল আজিজ বলেন, সকল কাজীদের একজন করে সহকারী আছে। এমনও দেখা গেছে একটি ইউনিয়নে একজন কাজী থাকার কথা থাকলেও বেশ কয়েকজন কাজী আছে। অনেকেই বেশী টাকার লোভে বাল্য বিবাহ্ কিংবা নানান ধরনের ঝামেলা পকিয়ে রাখছে। ফলে পরবর্তীতে ভোগান্তি পড়তে হচ্ছে অনেককে।
ব্রাকের জেলা সমন্বয়কারী আকতারুল ইসলাম ইসলাম জানান, বাল্যবিবাহের কারণে বিভিন্ন জায়গায় সংসারের কলহ লেগে আছে। আমাদের লিগ্যাল এইডে এই উপজেলা থেকে ১১৮২টি অভিযোগ হয়েছে। এরমধ্যে মিমংসা হয়েছে ৫৬১টি। বাল্যবিবাহের কারণে নির্যাতনের স্বীকার হচ্ছে অনেকে। পরবর্তীতে চলছে সংসার নিয়ে বিরোধ।
উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ সকল ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যানদের পরামর্শ দিয়ে বলেন, প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভায় কাজী অফিস করা দরকার। তাহলে সাধারণ মানুষ চিনতে পারবে আসল কাজীকে। বর্তমানে কাজীরা নিজ বাড়িতে কিংবা অন্যান্য জায়গায় অফিস দেয়ায় নানান অপরাধের সাথে জরিত হচ্ছে। তবে ইউনিয়ন পরিষদের আওতায় কাজী অফিস থাকলে সবসময় চেয়ারম্যানরা তদারকি করতে পারবে। এতে কমে যাবে বাল্যবিবাহ্ কিংবা বিভিন্ন অপরাধ প্রবণতা।

উপজলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার বলেন, আমি আসার পর থেকে লক্ষ করছি এ অঞ্চলে বাল্যবিবাহের হার অনেক বেশী। বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার এলেই শোনা যায় কোথাও না কোথাও বাল্যবিয়ে হচ্ছে। এ বিষয়ে আঠোর তৎপর আছি। আসলে এই অঞ্চলে জনসচেতনার অভাবকে দায়ী করা হচ্ছে। জনসচেনতা বৃদ্ধিও লক্ষে উপজেলা প্রশাসন করছে। আমি আশা করছি অন্যান্য সংস্থা গুলোও বাল্যবিবাহ্ রোধে জনসচেনতা বৃদ্ধি করবে। আর অহেতুক কোন কাজী বাল্যবিবাহ্ পড়ালে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নিবে উপজেলা প্রশাসন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ