মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

কুষ্টিয়ায় আবারো বাড়তে শুরু করেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২২

কুষ্টিয়ায় আবারো বাড়তে শুরু করেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আবারো বাড়তে শুরু করেছে কুষ্টিয়ায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এ জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯ জন। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যাননি।
কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডা. এ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, বুধবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ পর্যন্ত ২৩১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এদের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয় ৪৯ জনের শরীরে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ২১ শতাংশ। এবং সুস্থ হয়েছেন ১৬ জন।

তিনি আরো বলেন, গত এক সপ্তাহে কুষ্টিয়া জেলায় ১৬৮ জনের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন দুই জন। আগের সপ্তাহে জেলায় ৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এখন প্রতিদিনই জেলায় পাল্লা দিয়ে করোনার সংক্রমণের হার বেড়েয় চলছে।
ইতোমধ্যেই করোনার ওমিক্রন ভেরিয়েন্টের জন্য কুষ্টিয়াকে উচ্চঝুঁকিপূর্ণ জেলা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ডেলটা ভেরিয়েন্ট ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়ার সময়ও কুষ্টিয়াতে করোনা সবচেয়ে ভয়াবহ রূপ নিয়েছিল। ২০২০ সালে দেশে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত শুধুমাত্র কুষ্টিয়া জেলাতেই মারা গেছেন ৭৮৯ জন মানুষ।

সিভিল সার্জন ডা. এ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ওমিক্রন ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে খুব বেশি লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। বর্তমানে ১৭৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগীর মধ্যে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ৫ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ হাসপাতালে করোনার জন্য ৫০টি বেড রাখা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ