রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:১৮ অপরাহ্ন
ঘোষণাঃ
• বাংলাদেশ প্রতিবেদন-এর 'প্রতিনিধি সম্মেলন ২০২১' আগামী ৩ জানুয়ারি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হবে। প্রধান অতিথি সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। • দেশের কয়েকটি জেলা, উপজেলা, থানা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগঃ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হটলাইন। • বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। যোগাযোগঃ +৮৮ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হোয়াটসআপ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যে কোনো ব্যতিক্রম খবর পাঠিয়ে দিতে পারেন। ছবি ও ভিডিও থাকলে আরো ভাল। পাঠিয়ে দিন আমাদের এই ঠিকানায়: protibedonbd@gmail.com • আপনি কি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় পড়শুনা করছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে ‘ইন্টার্নশিপ’ এর সুযোগ। আজই যোগাযোগ করুন। • করোনা থেকে বাঁচতে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

বঙ্গবন্ধুর সমাজকল্যাণ ভাবনা: বর্তমান প্রেক্ষিত’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

/ ২৯ /২০২১
প্রকাশকালঃ সোমবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২২

‘বঙ্গবন্ধুর সমাজকল্যাণ ভাবনা: বর্তমান প্রেক্ষিত’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত।

শেখ শাহরিয়ার হোসেন/জবি প্রতিনিধিঃ

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আজ ১০ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার সমাজকর্ম বিভাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে ‘বঙ্গবন্ধুর সমাজকল্যাণ ভাবনা: বর্তমান প্রেক্ষিত’ শীর্ষক সেমিনার বিভাগীয় সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক। সমাজকর্ম বিভাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রাজিনা সুলতানার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ উপস্থিত ছিলেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল হোসেন এবং এই বিষয়ে আলোচনা করেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. অরুণ কুমার গোস্বামী।

সেমিনার আয়োজক কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। এসময় তিনি তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে রূপরেখা বাংলাদেশের জন্য করে দিয়েছিলেন সেই রেখা ধরেই আমাদের দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষিসহ অন্য সকল ক্ষেত্রের মত সমাজকর্মেও তিনি বিশেষ অবদান রেখেছেন।

প্রবন্ধ উপস্থাপক অধ্যাপক ড. মোঃ আবুল হোসেন বলেন, ৭৫’ এ বঙ্গবন্ধুর হত্যার পরে অনেক স্বৈরশাসক এদেশ শাসন করেছিলো। কিন্ত তারা সমাজকর্মের উপর তেমন কোনো গুরুত্বারোপ করতে পারেনি। বঙ্গবন্ধু তার অকাল মৃত্যুর কারনে স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মান হয়ত পুরোটা করে যেতে পারেননি কিন্তু তার শাসনামলে অর্থনীতির একটি চমৎকার পাটাতন গড়ে তুলেছিলেন যার উপর ভিত্তি করে বর্তমানে বৈপ্লবিক একটি পরিবর্তন এসেছে।

ড. অরুণ কুমার গোস্বামী বলেন, সরকারের কাজের বহি:প্রকাশ পায় তার কাজের মাধ্যমে।বঙ্গবন্ধুর চিন্তাচেতনাগুলোও তার কাজে প্রকাশ পেয়েছিলো এবং এতে সমাজকল্যাণমূলক ভাবনা গুলোও তার সাথে জড়িত ছিলো। তিনি আরো বলেন, দারিদ্র বিমোচন,পুন:বাসন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহ আরো বিভিন্ন সমাজকল্যানমূলক কাজ বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সাথে দেশে ফিরে শুরু করেছিলেন যা বর্তমান সরকার অব্যহত রেখেছেন।

কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ বলেন, বন্ধুবন্ধুর আত্মজীবনী থেকে আমরা দেখতে পাই তিনি অত্যন্ত সাধারণ ভাষায় তার চিন্তা- চেনতার কথা উল্লেখ করেছেন। বঙ্গবন্ধু যখন গ্রামে যেতেন সেখানে গ্রামের সাধারণ মানুষগুলোকেও বুকে জড়িয়ে নিতেন এ থেকেই বোঝা যায় বঙ্গবন্ধু কত উদার মনের মানুষ ছিলেন। এখান থেকে আমাদের অনেক কিছুই শেখার আছে।

প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধু যখন পাকিস্তানের অন্ধকার কারাগারে বন্দি ছিলেন তাকে বিভিন্ন ভাবে মানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি সেখান থেকে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারী দেশে ফিরেন।তিনি একটি সুখী সমৃদ্ধ দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্যে খুবই অল্প সময় হাতে পেয়েছিলেন। তাকে স্বপরিবারে হত্যার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে থামিয়ে দেওয়া হয়েছিলো কিন্তু বর্তমান সরকার দেশকে আবার এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সামনের দিকে। কৃষি, শিল্প সহ বিভিন্ন কিছুতেই দেশ বহি:বিশ্বে অনেক এগিয়ে গেছে।

এ সময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Categories