বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ১১:১১ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

একই পরিবারের ২ প্রার্থী, হেরে চাচাতো ভাইকে হত্যা

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২২

একই পরিবারের ২ প্রার্থী, হেরে চাচাতো ভাইকে হত্যা।

আপন সরদার :

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নে পরাজিত সদস্য প্রার্থীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল পৌনে ৯টার দিকে নওপাড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আব্দুল মালেক মালত (৫৫) ইউনিয়নের আজিজুল হক মুন্সীকান্দি গ্রামের মৃত কচর আহামেদ মালতের ছেলে। পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ওই ইউনিয়নে ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মোরগ প্রতীকের সাধারণ সদস্য পদের প্রার্থী ছিলেন তিনি। অল্প ভোটে পরাজিত হয়েছেন তিনি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পরাজিত সদস্য প্রার্থী মালেক মালত আজ সকালে নওপাড়া বাজারে বাজার করতে যান। তার চাচাতো ভাই একই ওয়ার্ডের পরাজিত আরেক সদস্য প্রার্থী টিউবওয়েল প্রতীকের দেলোয়ার হোসেন মালত হঠাৎ মালেকের মাথায় বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন। দেলোয়ার হোসেন নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের বিজয়ী চেয়ারম্যান জাকির মুন্সীর (আনারস) সমর্থক বলে জানা গেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় মালেককে পাশের জেলা মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নওপাড়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মোট চার জন সাধারণ সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। অপর দুই প্রার্থী হলেন দেলোয়ার হোসেন মালত (টিউবয়েল), তাফাজ্জেল তপদার (আপেল) ও দেলু বেপারী (ফুটবল)। এর মধ্যে তাফাজ্জেল তপদার বিজয়ী হয়েছেন।

নড়িয়া থানার ওসি অবনি সংকর কর বলেন, ‘মালেক মালত ও দেলোয়ার হোসেন মালত আপন চাচাতো ভাই। দুজনই পরাজিত হয়েছেন। বুধবার রাতে এক বংশের দুই প্রার্থী হওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এরই জেরে আজ মালেক বাজারে গেলে তাকে বাঁশ দিয়ে মাথায় আঘাত করেন দেলোয়ার। এতে তিনি মারা যান।’

তিনি আরও বলেন, ‘লাশটি মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত করতে বলা হয়েছে। তারা যদি না করেন তাহলে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে এনে করা হবে। এ বিষয়ে মামলা হবে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ