বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৬ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

চট্টগ্রামে এসেও ঠাঁই হলোনা তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদের, ফিরে গেলেন ঢাকায়

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১

চট্টগ্রামে এসেও ঠাঁই হলোনা তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদের, ফিরে গেলেন ঢাকায়।

এম. মতিন/চট্টগ্রাম ব্যুরো:

সম্প্রতি একটি ভার্চুয়াল টকশোতে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মেয়ে জাইমা রহমানকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, যৌন হয়রানিমূলক, বিকৃত, বর্ণবাদী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী নেত্রীদের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য এবং সর্বশেষ নায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে অশ্লীল আহ্বানের কল রেকর্ড ফাঁসের পর চারদিকে যখন সমালোচনার ঝড় উঠে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে। এতে তোপের মুখে পড়েন ডাঃ মুরাদ। ঠিক তখনই ঢাকা ছেড়ে চট্টগ্রামে চলে আসেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুর ২টার দিকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন তিনি। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রামের স্টেডিয়াম পাড়ার পাঁচ তারকা হোটেল রেডিসন ব্লুতে অবস্থান করছেন। রেডিসন ব্লু’র বিলাসবহুল কক্ষে শুয়ে শুয়েই মন্ত্রিসভা থেকে অব্যাহতির জন্য ‘প্রধানমন্ত্রীর আদেশ’ পাওয়ার কড়া বার্তা শুনলেন ডাঃ মুরাদ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রতিমন্ত্রী চট্টগ্রামের উদ্দেশে দুপুরেই ঢাকা থেকে রওনা হন। সেখানে তার এক বন্ধুর বাসায় ওঠার কথা। বর্তমানে তার ফোন বন্ধ রয়েছে। তাই তার সঠিক অবস্থান জানি না।

তিনি বলেন, সোমবার সচিবালয়ে নিজ দফতরেও আসেননি প্রতিমন্ত্রী। এদিন বিকেল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর তোপখানা রোডে অবস্থিত বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও সেখানে যাননি সরকারের এ প্রতিমন্ত্রী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রামের রেডিসন ব্লুতে আসেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের বিতর্কিত এই প্রতিমন্ত্রী। চট্টগ্রামের রেডিসন ব্লুতেই ছিলেন। ঢাকা থেকে একা এসে রেডিসন ব্লু বে-ভিউ হোটেলে উঠেছেন ডাবল বেডের বিলাসী কক্ষে। সন্ধ্যায় যখন প্রধানমন্ত্রীর আদেশের বিষয়টি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সংবাদ সম্মেলনে প্রকাশিত হয়, এসময় ডা. মুরাদ হাসানকে অনেকটাই নির্বিকার দেখা গেছে বলে জানা সূত্রটি।

এদিকে অশালীন ও অতিকথনে সাম্প্রতিক সময়ে আলোচনার তুঙ্গে থাকা এই প্রতিমন্ত্রী এতোদিন ধরা- ছোঁয়ার বাইরে থাকলেও গতকাল ৬ ডিসেম্বর ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা মাহিয়া মাহি ও চিত্রনায়ক ইমনের সাথে ডা. মুরাদ হাসানের একটি কথোপকথনের কল রেকর্ড ফাঁস হয়। যা ইতোমধ্যে তুমুল আলোচনা- সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

অডিও ক্লিপটিতে শোনা যায়, নায়িকা মাহিকে তাৎক্ষণিক তার কাছে যেতে বলছেন মুরাদ। নায়িকা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও হুমকি দেন প্রতিমন্ত্রী। ওই কথোপকথনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। এমনকি বিকৃত কায়দায় ওই চিত্রনায়িকাকে ধর্ষণের হুমকিও দেওয়া হয় এ সময়। বিষয়টি দেশজুড়ে তীব্র সমালোচনার জন্ম দেয়। ঠিক তখনই তথ্য প্রতিমন্ত্রী ঢাকা ছেড়ে চট্টগ্রামে চলে আসেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের আরেক খবরে জানা গেছে, হোটেল রেডিসন ব্লু থেকে আজ সকালে প্রতিমন্ত্রীর এক বন্ধুর বাসায় যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। তবে বিভিন্ন কারণে রাতেই হোটেল রেডিসন ব্লু থেকে তাকে সরে যেতে বলা হয় সংশ্লিষ্ট একটি মহল থেকে। হয়তো আজকের মধ্যেই হোটেল রেডিসন ব্লু ত্যাগ করতে পারেন প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ। তবে, আজ মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৩ টার দিকে সতর্কবার্তা পেয়ে চট্টগ্রাম ছেড়ে তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন জানা যায়।

উল্লেখ্য, ডাঃ মুরাদ হাসান জামালপুর-৪ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য। তিনি নবম এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালের মন্ত্রীসভায় তিনি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পান। এরপর ২০১৯ সালের ১৯ মে থেকে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ