বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০১:২০ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

৪৬ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নোবিপ্রবির অবস্থান ১৫ তম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির মধ্যে চতুর্থ

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১

৪৬ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নোবিপ্রবির অবস্থান ১৫ তম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির মধ্যে চতুর্থ।

নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ২০২০-২১ অর্থ বছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) প্রকাশ করেছে। ইউজিসির সে মূল্যায়নে দেশের ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) অবস্থান ১৫তম এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অবস্থান চতুর্থ।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মূল্যায়ন প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সরকারি দপ্তর-সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের দক্ষতা ও দায়বদ্ধতা বাড়ানোর লক্ষ্যে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে এই বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির (এপিএ) প্রবর্তন করা হয়।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০-২১ অর্থবছরে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের আওতাধীন বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের প্রাপ্ত নম্বরের ক্রমানুসারে নোবিপ্রবির অবস্থান ১৫ তম এবং প্রাপ্ত নম্বর ৭০.৩৩।

ইউজিসির এই মূল্যায়নে প্রথম স্থানে রয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, নম্বর পেয়েছে ৯৮.৩৮। ৯৩ দশমিক ৮ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। তৃতীয় স্থানে রয়েছে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নম্বর পেয়েছে ৯২.১৫। এছাড়াও যথাক্রমে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম বলেন, আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের কাজগুলো যথাসময়ে করতে। আশা করি সামনে আমরা আরো ভালো অবস্থানে যেতে পারবো। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী, গণমাধ্যমকর্মীসহ সবার প্রচেষ্টায় এটা সম্ভব হয়েছে। আমি সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ