মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৪৪ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

স্থগিত হচ্ছে জেএমআই হাসপাতালের আইপিও

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১

স্থগিত হচ্ছে জেএমআই হাসপাতালের আইপিও

পুঁজিবাজারে চলমান নিম্নমুখী প্রবণতা ও লেনদেন কমে যাওয়ায় জেএমআই হসপিটাল রিকিইউজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেডের বিডিং প্রক্রিয়া পিছিয়ে দেয়ার চিন্তা করছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এছাড়াও বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে আসা কোম্পানিগুলোর আইপিও কার্যক্রমও পিছিয়ে যেতে পারে।

বাজারে তারল্য সংকট চলছে- এ অবস্থায় বিনিয়োগকারীরা নতুন আইপিও বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছেন।

এই প্রশ্নটি বাংলাদেশ প্রতিবেদন-এর পক্ষ থেকে বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিমকে করা হয়েছিল।

তিনি বাংলাদেশ প্রতিবেদনকে বলেন, জেএমআই হাসপাতালের বিডিং পিছিয়ে দেওয়ার চিন্তা করছে কমিশন। এছাড়া বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে আসার অপেক্ষায় থাকা বাকী কোম্পানির কার্ক্রমও পিছিয়ে যেতে পারে। তবে এখানে আইনি কিছু বাধ্যবাধকতা আছে। সেই বিষয়গুলো চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সাধারণত বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে কোম্পানিগুলো বড় ধরনের মূলধন সংগ্রহ করে থাকে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে বিএসইসির টানাপোড়েন চলছে। ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ সংক্রান্ত কিছু বিষয়ে সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তারল্য সংকট কাটার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

জানা গেছে, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৭৫ কোটি টাকা উত্তোলন করবে জেএমআই হসপিটাল লিমিটেড। বিএসইসির ৭৯৯তম কমিশন সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

বিএসইসির তথ্যমতে, আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি ৭৫ কোটি টাকা পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলন করে যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম ক্রয়, দালানকোটা নির্মান, ভূমি উন্নয়ন, ঋণ পরিশোধ এবং প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের খরচ খাতে ব্যয় করবে। কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০২০ তারিখে সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী পুন:মূল্যায়ন ছাড়া নেট এ্যাসেট ভ্যালু টাকা ২৭.৭৮ এবং পুন:মূল্যায়নসহ নেট এ্যাসেট ভ্যালু টাকা ২৯.৯৯ এবং বিগত ৫ বছরের ভারিত গড় হারে শেয়ার প্রতি আয় ২.৪২ টাকা।

কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ৯০ কোটি টাকা। জেএমআই হসপিটাল লিমিটেডের কাট অফ প্রাইসের ২০ শতাংশ ডিসকাউন্টে সাধারণ বিনিয়োগকারীর নিকট শেয়ার ইস্যু করবে এবং এখন থেকে ইস্যুয়ার কোম্পানি কোন ধরণের ইন্টার কোম্পানি লোন অনুমোদন করতে পারবে না।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পূর্বে কোম্পানিটি কোন প্রকার লভ্যাংশ ঘোষণা, অনুমোদন বা বিতরণ করতে পারবে না মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে জনতা ক্যাপিটাল এ্যান্ড ইনভেস্টম্যান্ট লিমিটেড।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ