বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৫ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

কে এই রাসেল? লক্ষ্মীপুরের ভবানীগঞ্জে আ.লীগ নেতা হালিম মাষ্টারকে যুবলীগ নেতার হুমকি

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ শনিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২১

কে এই রাসেল? লক্ষ্মীপুরের ভবানীগঞ্জে আ.লীগ নেতা হালিম মাষ্টারকে যুবলীগ নেতার হুমকি।
৫ জন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী এক হয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

নাজিম উদ্দিন রানাঃ

লক্ষ্মীপুরে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যুবলীগ নেতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন একজন প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা ও স্বতন্ত্র ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী। এ সময় তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দিয়েছেন বলে লিখিত অভিযোগ উল্লেখ করা হয়েছে ওই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) রাতে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের ওয়াপদা অফিস নামক স্থানে ওই ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক আবদুর রাজ্জাক রাসেলের হাতে লাঞ্ছিত হন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাষ্টার।
এ ঘটনায় রাতেই সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি। এছাড়া ঘটনার প্রতিবাদে রাতে আওয়ামী লীগের সাবেক নেতারা এবং ওই ইউনিয়ন পরিষদের ৫ জন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী এক হয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে নৌকা প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল খালেক বাদলকে। যুবলীগ নেতা রাসেল চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদলের সমর্থক।

স্থানীয় লোকজন ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাষ্টার। দল থেকে নৌকা প্রতীক না পেয়ে তিনি বিদ্রোহী হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন।

শুক্রবার রাতে তিনি ইউনিয়নের ওয়াপদা অফিস সংলগ্ন এলাকায় লোকজনের সাথে কুশল বিনিময় করতেছিলেন। এ সময় যুবলীগ নেতা আবদুর রাজ্জাক রাসেল দলবল নিয়ে সেখানে গিয়ে হালিম মাষ্টারকে নির্বাচন থেকে সরে যেতে হুমকি দেন। এক পর্যায়ে জনসম্মুখে তাকে লাঞ্ছিত করেন এবং মেরে ফেলারও হুমকি দেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই স্থানীয় পিয়ারাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন ইউনিয়নের সকল স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।
তারা হলেন হুমকির শিকার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাস্টার, ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান ডালি, মামুনুর রশিদ ভূঁইয়া, সাবেক সহ-সভাপতি মোক্তার হোসেন বিপ্লব , ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মমতাজ বেগমের ছেলে সাইফুল হাসান রনি।

এ সময় তারা প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যার হুমকির ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।
তারা বলেন, ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নে যোগ্য ব্যক্তিকে নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। এলাকায় যার জনসমর্থন নেই তাকে নৌকা প্রতীক দেওয়া হয়েছে। ফলে ত্যাগী নেতারা স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হয়েছে। এখন নির্বাচনী মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক আবদুর রাজ্জাক রাসেল বলেন, হালিম মাষ্টার নৌকার বিরুদ্ধে বক্তব্য দিচ্ছে। টাকার বিনিময়ে নাকি নৌকা প্রতীক দেওয়া হয়েছে। তাই তাকে এসব কথা না বলতে নিষেধ করি। লাঞ্ছিত বা মেরে ফেলার হুমকি সঠিক নয়।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, হুমকির বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ