মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৪:১৩ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার শিকার লাখ লাখ গ্রাহক প্রতিকার পাচ্ছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১

ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার শিকার লাখ লাখ গ্রাহক প্রতিকার পাচ্ছে না-গোলাম মোহাম্মদ কাদের

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানগুলোর ধারাবাহিক প্রতারণার শিকার লাখ লাখ গ্রাহক প্রতিকার পাচ্ছে না। স্বল্প আয়ের মানুষেররা প্রতারিত হয়ে ফিরে পাচ্ছে না তাদের মূলধন। আবার বন্ধ হচ্ছে না ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার ফাঁদ। প্রতারিতদের অর্থ ফেরত পেতে সরকারের কোন উদ্যোগ আছে বলে দৃশ্যমান হচ্ছে না।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের আজ এক বিৃতিতে বলেন, কয়েক বছর ধরে ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানগুলো চটকদার বিজ্ঞাপন আর লোভনীয় অফার দিয়ে আকৃষ্ট করছে লাখ লাখ গ্রাহক। তারপর বিভিন্ন পণ্য সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আগাম টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যাচ্ছে। অপেক্ষাকৃত নিম্ম আয়ের মানুষই ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার শিকার হচ্ছে বেশি। গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদনে জানা গেছে, ইতোমধ্যেই কয়েকটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান হাজার-হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। কিন্তু, সরকারের কার্যকর কোন পদক্ষেপ না থাকায় প্রতারণার এই ধারা বন্ধ হচ্ছে না। এতে প্রতারিতের সংখ্যাও বেড়ে যাচ্ছে। মূলধন হারিয়ে পথে বসেছে অনেক ব্যবসায়ী।

বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরো বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহকদের তালিকা করে তাদের প্রাপ্য ফিরিয়ে দিতে সরকারিভাবেই দায়িত্ব নিতে হবে। প্রতারকদের বিরুদ্ধে নিতে হবে আইনগত ব্যবস্থা। পাশাপাশি প্রয়োজনীয় আইন প্রনয়ণ করে প্রতারকদের ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে সরকারিভাবে প্রশাসক নিয়োগ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ