শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

বেনাপোল এক্সপ্রেস ২ ডিসেম্বর থেকে চালু হচ্ছে

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ বুধবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২১

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে আসায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে আবারও ২ ডিসেম্বর থেকে রেলপথে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে যশোর-বেনাপোল রুটে যোগাযোগ রক্ষাকারী একমাত্র ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস চালু হতে যাচ্ছে। করোনা মহামারির কারণে এরুটে গত ৫ এপ্রিল থেকে সাময়িকভাবে বেনাপোল এক্সপ্রেস চলাচল বন্ধ হয়।

ভারত-বাংলাদেশ ল্যান্ড পোর্ট ইমপোর্ট-এক্সপোর্ট কমিটির চেয়ারমান মতিয়ার রহমান বলেন, বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ঢাকাসহ দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ৫ থেকে ৬ হাজার পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারতে যাতায়াত করে থাকে। করোনাকালীন পরিস্থিতির কারণে দেশের সব ট্রেন বন্ধ হলে বেনাপোল-ঢাকাগামী আন্তঃনগর এ ট্রেনটি সরকার বন্ধ করে দেয়। তবে বেশ কিছু দিন আগে সরকার সব ধরনের যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেও চালু হয়নি ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’। ফলে কষ্ট এবং দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল ভারত যাতায়াতকারী অসুস্থ পাসপোর্ট যাত্রীদের। এতে ব্যবসায়ীসহ সর্বস্তরের মানুষ বেনাপোল এক্সপ্রেস চালুর দাবি তোলেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২ ডিসেম্বর থেকে আবারও চালু হচ্ছে জেনে সবাই খুশি।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসেসিয়েশনের সেক্রেটারি সাজেদুর রহমান জানান, সড়ক পথের বেহাল দশা ও দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে ফেরিঘাটে যানজটের কারণে নানা ধরনের হয়রানির শিকার হতে হয় যাত্রীদের। সাধারণ সময়ে দিনে ১০ হাজার পর্যন্ত যাত্রী বেনাপোল বন্দর দিয়ে যাতায়াত করে থাকে। তবে বর্তমানে করোনার কারণে প্রতিদিন যাত্রীর পরিমাণ দেড় হাজারের কাছাকাছি। এসব যাত্রীদের ৯৫ শতাংশ ভারতে যাচ্ছেন চিকিৎসা সেবা নিতে। ট্রেন না থাকায় এসব যাত্রীদের বাড়িতে ফেরার জন্য সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দেরিতে হলেও ট্রেনটি আবারও চালু হচ্ছে এতে ভোগান্তি কমবে।

জানা যায়, বেনাপোল থেকে ঢাকায় যেতে পরিবহনে সময় লাগে ১২-১৪ ঘণ্টা। সড়কে যানজট বা আবহাওয়া খারাপ হলে অনেক সময় দ্বিগুণ সময় লেগে যায়। এক্ষেত্রে ট্রেনে নির্বিঘ্নে মাত্র সাড়ে সাত ঘণ্টায় বেনাপোল থেকে ঢাকায় পৌঁছানো যায়। সপ্তাহে একদিন বৃহস্পতিবার বিরতি দিয়ে প্রতিদিন দুপুর ১টায় বেনাপোল থেকে ছেড়ে যায় ঢাকাতে এবং রাত সাড়ে ১০টায় কমলাপুর থেকে ছেড়ে আসে বেনাপোল এক্সপ্রেস। বেনাপোল থেকে ঢাকায় যাত্রী প্রতি এসিতে ভাড়া ১১১৬ টাকা, ননএসিতে ৪৮৫ টাকা। ঢাকা থেকে এসি স্লিপার ভাড়া ১৭৮১ টাকা, ননএসিতে ৪৮৫ টাকা।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান জানান, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ রোধে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল এখন পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। তবে ২ ডিসেম্বর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আবারও বেনাপোল এক্সপ্রেস চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল বিভাগ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ