শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০২:৩০ অপরাহ্ন
জরুরী ঘোষণাঃ
দেশের কয়েকটি জেলা, উপজেলা, থানা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগঃ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হটলাইন। বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। যোগাযোগঃ +৮৮ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হোয়াটসআপ। আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যে কোনো ব্যতিক্রম খবর পাঠিয়ে দিতে পারেন। ছবি ও ভিডিও থাকলে আরো ভাল। পাঠিয়ে দিন আমাদের এই ঠিকানায়: protibedonbd@gmail.com • আপনি কি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় পড়শুনা করছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে ‘ইন্টার্নশিপ’ এর সুযোগ। আজই যোগাযোগ করুন। করোনা থেকে বাঁচতে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

বাদাম বিক্রেতা পাখির প্রতারণার শিকার অর্ধশত তরুণী

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৬৯ /২০২১
প্রকাশকালঃ রবিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২১

বাদাম বিক্রেতা পাখির প্রতারণার শিকার অর্ধশত তরুণী

পরিচয় থেকে পরিণয় অতঃপর বিয়ে; নানা ছলাকলা মিষ্টি হাসির আড়ালে লুকিয়ে ছিল এক কুচ্ছিত ভয়ানক রূপ। কে জানত তার মিষ্টি হাসির আড়ালে কাজ করছে অন্ধকার জীবনের হাতছানি?

রাজধানী ঢাকার শিল্পকলা একাডেমির নিয়মিত নৃত্য শিল্পী ছন্মনাম (জেরিস) বাবা-মা ভাই-বোনসহ বসবাস করেন, মিরপুর সেনানিবাসে।

এমনই এক তারুণ্যের অধিকারী সম্ভাবনাময় তরুণীর ওপর কু-দৃষ্টি পড়ে প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খানের।

ছন্ম নাম (জেরিস) এর বান্ধবীর মাধ্যমে প্রেমের প্রস্তাব দেন প্রতারক পাখি।একাধিকবার প্রতারক পাখির প্রেম প্রস্তাব প্রতাখ্যান করলেও হাল ছাড়েনি সে। নানাভাবে ফুঁসলিয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ২০ মে ২০২০ সালে বিয়ের পিঁড়িতেও বসায় প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খান।

বিয়ের প্রথম রাত থেকে ধীরে-ধীরে ফুটে উঠতে থাকে পাখির আসল রুপ।

ফুল শয্যার রাতেই (রাজধানীর আগারগাঁও ৬০ ফিট এর বাসায়) জেরিসকে কু-প্রস্তাব দেন পাখি। নিরবে বুঝাতে চায় মাঝে মাঝে অন্য পুরুষদের সাথে সময় কাটালে পাওয়া যাবে অনেক টাকা। সদ্য বিবাহিত স্বামীর এমন প্রস্তাবে কেমন যেন, খটকা লাগে তার।

তবে সামাদ অতন্ত্য চতুর প্রকৃতির হওয়ায় সু-কৌশলে স্ত্রী জেরিস এর কাছে রাতের ঘটনাকে দুষ্টামি বলে ক্ষমা চেয়ে পাশ কেটে যায়।

প্রতারক সামাদ চলেফেরা করনে দামি ব্র্যান্ডের পাজেরো গাড়িতে থাকেন গুলশান-বনানীর মতো এলাকার দামি ফ্লাটে।

ছন্ম নাম (জেরিস) এর বিয়ের কিছুদিন পরে ব্যবসায়ীক মন্দার কথা বলে ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ সালে স্ত্রী জেরিস এর কাছে নিশান এক্সটেল ঢাকা মেট্রো ঘ-০০০৫৫১ নামের একটি জিপ ২৩ লাখ টাকার মিনিময়ে তার নামে করে দেয় সামাদ।

প্রতারক আব্দুস সামাদ ওরফে আলম খান ভুয়া কার্ড বানিয়ে (ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস) এর ওয়ার্ল্ড ডিরেক্টর পরিচয় দিতেন। জনতা টিভির স্বতাধিকারি পরিচয়ে ভুয়া অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দিয়ে বাংলাদেশ সচিবালয়ে যাতায়াত করতেন ।

২০২১ সালের কোন এক রাতে আগারেগাঁও ৬০ ফিটের বাসায় প্রতারক সামাদ ২ জন অর্ধবয়স্ক লোক নিয়ে স্ত্রী ছদ্মনাম (জেরিস) এর রুমে ঢুকায় এবং তাদের সংঙ্গে রাতযাপনের কথা বলে।

এসময় জেরিস ২ আগন্তক’কে বলেন আপনারা আমার বাবার বয়সি, আমার র্সবনাশ করবেন না। আর সামাদ আমার স্বামী হয়ে কি করে একাজ করতে পারে। এসব কথা শুনে আগন্তক ২ ব্যক্তি বেরিয়ে চলে যায়।

এরপরই নেমে আসে জেরিসের উপর প্রতারক আব্দুস সামাদ ওরফে আলম খান পাখির পাশবিক অত্যাচার। সেই রাতে জেরিস কোন রকমে প্রাণে বেঁচে তার বাবার সহায়তায় ডাক্তার দেখিয়ে তাদের সেনানিবাসের বাসায় চলে যায়।

মিরপুর থানায় আব্দুস সামাদ পাখির নামে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের কররন জেরিস।

এর পর স্ত্রী জেরিসের কাছে বিক্রি করা নিশান এক্সটেল ঢাকা মেট্রো ঘ-০০০৫৫১ জিপটির ভুয়া কাগজ নাম্বার প্লেট বদলে হাসিনা নামের এক মহিলার কাছে বিক্রি করে পাখি।

প্রতারক পাখি স্ত্রী জেরিসকে হাতিরঝিল এলাকায় সিএনজি চালকের মাধ্যমে হত্যার চেষ্টা চালায় সম্প্রতি। এ ব্যপারে জেরিস আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খানের বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় একটি হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করেন।

এই দূর প্রতারক একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে আসছে দীর্ঘ দিন যাবৎ। তার ২টি জাতীয় পরিচয় পত্রে দেখা যায়। একটিতে সামাদ খান পাখি, পিতা আব্দুল হক, মাতা জেবুনেছা পরিচয়পত্র নং ৩২৮৩৩৫৩৪১৯ ।

অপর একটিতে দেখা যায়, মোঃ আলম খান, পিতা আসাদ খান, মাতা সাবিনা খানম পরিচয়পত্র নং ১৯৮৪২৬৯৬১৬৮০০০০৭১।

জানা যায়, প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খান তার রাজধানী ঢাকাসহ কুষ্টিয়া কুমারখালিতে একাধিক রাজকীয় বাড়ি থাকলেও নিজ বাড়িতে না থেকে থাকেন বিভিন্ন ভাড়া বাসায়। নামে-বেনামে রয়েছে একাধিক ব্যাংক একাউন্ট।

মাত্র ১৫ বছর আগে রাজধানীর মুহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন স্থানে বাদাম বিক্রি করে কোন রকম দিনপার করত প্রতারক সামাদ। শুরুর দিকে কুমারখালীতে ব্রয়লার মুরগীর দোকানে কাজও করতো সে।

প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খান এর বিরুদ্ধে রাজশাহী, কুষ্টিয়া, গোদাগারি, রাজধানী ঢাকার পল্টন, হাতিররঝিল, মিরপুরসহ একাধিক থানায় বিস্ফোরক, মাদক, নারী পাচারসহ প্রায় অর্ধশত মামলা রয়েছে ।

কয়েকটি মামলায় সে সাজাপ্রাপ্ত এবং পরোয়ানাভুক্ত ফেরারী আসামী।

জানা যায়, কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার এলেঙ্গীপাড়ার মৃত: আব্দুল হকের ছেলে এই প্রতারক আব্দুস সামাদদ পাখি।

প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি রাজধানীর উর্তি বয়সের তরুণীদের টাগের্ট করে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে গোপনে অন্তরঙ্গ ভিডিও ধারন করে ব্ল্যাকমেইলের মাধদ্যমে প্রথমে দেহব্যবসা করান এবং ভারতসহ বিভিন্ন দেশে পাচার করেন। নারী পাচার, দেহ ব্যবসা এবং মাদক চোরাচালান করে মাদাম বিক্রেতা পাখি এখন কয়েক শতাধিক কোটি টাকার মালিক বনেগেছে। রাজধানীর মুহাম্মদপুর, গুলশান, বনানী, পুরান ঢাকাসহ একাধিক স্থানে রয়েছে তার বিলাসবহুল ফ্ল্যাট বাড়ি ও গাড়ি।

এমতাবস্থায় ভুক্তভোগী ছন্মনাম জেরিস ও সচেতন মহলের দাবি দ্রুততম সময়ে প্রতারক আব্দুস সামাদ পাখি ওরফে আলম খানকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা হোক। বাংলা রিপোর্ট

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Categories