মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৪৭ অপরাহ্ন
জরুরী ঘোষণাঃ
দেশের কয়েকটি জেলা, উপজেলা, থানা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগঃ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হটলাইন। বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। যোগাযোগঃ +৮৮ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হোয়াটসআপ। আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যে কোনো ব্যতিক্রম খবর পাঠিয়ে দিতে পারেন। ছবি ও ভিডিও থাকলে আরো ভাল। পাঠিয়ে দিন আমাদের এই ঠিকানায়: protibedonbd@gmail.com • আপনি কি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় পড়শুনা করছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে ‘ইন্টার্নশিপ’ এর সুযোগ। আজই যোগাযোগ করুন। করোনা থেকে বাঁচতে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

পাবনা মানসিক হাসপাতালের রোগীরা চার বেলার খাবার পায় একশত ছয় টাকায়

/ ৫৫ /২০২১
প্রকাশকালঃ মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১

পাবনা মানসিক হাসপাতালের রোগীরা চার বেলার খাবার পায় একশত ছয় টাকায়।

বাকী বিল্লাহ: (সাঁথিয়া-বেড়া) পাবনা প্রতিনিধিঃ

পাবনার মানসিক হাসপাতালে একেকজন রোগীকে চারবেলা খাবার দেওয়া হয় একশত ছয় টাকায়। যেখানে হোটেলে একবেলা পেটপুরে খেতে একশত ছয় টাকায় কিছুই হয়না। সরকারি ভাবে বরাদ্দ না বাড়ায় অল্প টাকায় রোগীদের মানসম্মত খাবার দেওয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হয় বলে জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ”।

শনিবার (৯ অক্টোবর) হাসপাতালের প্রধান ফটক পেরিয়ে অনেক খানি পথ যেতে হলো। চোখে পড়লো বিশাল মাঠ কিন্তু তা অরক্ষিত। গরু ছাগলের অবাধ বিচরণ। হাসপাতালের পুরনো ভবন গুলোতে স্থানীয় কেউ কেউ গরু ছাগল পালন করে। ভাঙাচোরা ভবন গুলো আশির দশকে করা হয়েছিল। তখন পাবনা মেডিকেল কলেজ মানসিক হাসপাতাল চত্বরে ছিলো”।

 

“কিছুদিন পর সরকার পাবনা মেডিকেল কলেজ বন্ধ করে দেয়। তারপর থেকেই হাসপাতাল গুলো অরক্ষিত হয়ে পড়ে। দুর্বৃত্তরা ভবনের জিনিসপত্র দরজা জানালা ও টিন খুলে নিয়ে যায়। ভবন গুলো ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণ জরুরি হয়ে পড়েছে”।

 

“ভেতরের রাস্তার দুইপাশে পরিত্যক্ত ভবন, বহির্বিভাগ পেড়িয়ে ঈদগাহ মাঠ,খেলার মাঠের একপাশে হাসপাতালের প্রধান ভবন। মানসিক চিকিৎসার জন্য এটিই দেশের সরকারি সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান “পাবনা মানসিক হাসপাতাল”।

 

“হাসপাতালের প্রশাসনিক ভবনে ঢুকতে অনুমতি নিতে হয়। সে সকল নিয়ম সেরে ভেতরে ঢুকতেই একপাশে প্রশাসনিক বিভাগ। অন্যপাশে পুরুষ ওয়ার্ড এবং পাশের ভবনে নারী ওয়ার্ড রয়েছে। পুরুষ ওয়ার্ডের যারা চিকিৎসায় অনেকটা সুস্থ্যের দিকে তাদের আলাদা এক ওয়ার্ডে রাখা হয়। সেখানে তারা দল বেধে বন্ধুর মতোই থাকেন। সকালের নাস্তা সেরে যাদের ইচ্ছা বিনোদনের জন্য নির্ধারিত অডিটোরিয়ামে চলে যায়”।

“হাসপাতালের এক সিনেমা অপারেটর জানান, রোগীদের মানসিক বিনোদনের ব্যবস্থা রয়েছে।পাবনা মানসিক হাসপাতালে গরু ছাগলের অবাধ বিচরণ”।

“সেবা দানকারীরা জানান, দুপুর একটায় তাদের জন্য ঘণ্টা বাজে। বড় ছয়টি পাত্রে মানসিক রোগীদের জন্য রান্না করেন বাবুর্চিরা। খাবার নিয়ে যেতেও অপেক্ষারত সুস্থ্য রোগীরা সহায়তা করেন। স্বাভাবিক জীবনে নিয়ে আসার জন্যই মূলত তাদের দৈনন্দিন কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত করা হয়। তারা খাবার ঘরে ঢোকেন বেশ শৃঙ্খলার সঙ্গে। খাওয়ার পর বেশির ভাগ রোগী তাদের প্লেটটিও সুন্দর করে পরিষ্কার করে রাখেন”।

 

“খাবারের বিষয়ে কথা হলে হাসপাতালের সেবা কাজের সঙ্গে নিয়োজিত কর্মচারীরা জানান, রোগীদের মধ্যে সু’সম্পর্ক রয়েছে। তারা একে অপরের খোঁজ খবর নেন। ভালো-মন্দ দেখভাল করেন। খাবারের পর তারা বিশ্রাম নেন। রসিকতা ও খোসগল্পেও মেতে ওঠেন তারা”।

 

“হাসপাতালের প্রধান সহকারী আহসান হাবিব বলেন, মোট চারবেলা খাবার দেওয়া হয় রোগীদের। সকাল আটটায় রুটি, সুজি ও ডিম। দুপুরে মাছ মাংস, ডাল, সবজি ও ভাত। রাতের খাবারটা সন্ধ্যার আগেই দেওয়া হয়। ঠিক দুপুরের মতো। রাত নয়টার দিকে আবার কলা ও বিস্কুট খেয়ে রোগীরা ঘুমাতে যান। হাসপাতালটিতে রোগীদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা রয়েছে”।

“হাসপাতালের পরিচালক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান জানান, চিকিৎসক ছাড়াও এখানে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদেরও খুবই প্রয়োজন। রোগীদের গোসল, খাওয়া দাওয়া, পায়খানা প্রসাব পরিষ্কার করার কাজে পর্যাপ্ত কর্মচারী-সুইপার নেই”।

“ডা. আবুল বাশার জানান, পাবনা মানসিক হাসপাতালে জনপ্রতি রোগীর খাদ্য বাবদ দৈনিক বরাদ্দ ১২৫ টাকা। এই টাকার ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিয়ে দাঁড়ায় ১০৬ টাকা ২৫ পয়সায়। তার মধ্যে রয়েছে ঠিকাদারের লাভ ইত্যাদি। এসব ব্যয় বাদে যে টাকা থাকে তা দিয়ে রোগীদের তিন বেলা খাবার এবং বিকেলে নাস্তা দেওয়া হয়”।

 

“তিনি জানান, স্বল্প বাজেটের মধ্যেও রোগীদের যতদূর সম্ভব ভালো খাবার দেওয়া হয়। খাবার পরিবেশনও স্বাস্থ্য সম্মত ভাবে করা হয়। তবে বাজারদর অনুযায়ী এ অল্প টাকায় মানসিক রোগীদের স্বাস্থ্য সম্মত খাবার দেওয়া অনেক কঠিন বলে তিনি জানান”।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Categories