শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০১ অপরাহ্ন
জরুরী ঘোষণাঃ
দেশের কয়েকটি জেলা, উপজেলা, থানা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগঃ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হটলাইন। বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। যোগাযোগঃ +৮৮ ০১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ হোয়াটসআপ। আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যে কোনো ব্যতিক্রম খবর পাঠিয়ে দিতে পারেন। ছবি ও ভিডিও থাকলে আরো ভাল। পাঠিয়ে দিন আমাদের এই ঠিকানায়: protibedonbd@gmail.com • আপনি কি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতায় পড়শুনা করছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে ‘ইন্টার্নশিপ’ এর সুযোগ। আজই যোগাযোগ করুন। করোনা থেকে বাঁচতে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

সমুদ্রের বুকে নির্মিত হচ্ছে বিমানবন্দর রানওয়ে

/ ৬১ /২০২১
প্রকাশকালঃ শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১

“২৯ আগস্ট উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা”

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার।।

বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার মহেশখালী চ্যানেলের উপরে ‘সমুদ্রের বুকে’ নির্মিত হচ্ছে দেশের দীর্ঘতম বিমানবন্দর রানওয়ে। ১৭০০ ফুট রানওয়ে সম্প্রসারণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫ শত ৬৯ কোটি টাকা।
এই প্রকল্পের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৯ আগস্ট ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিমান বন্দর রানওয়ে বর্ধিত করণ কাজের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।
জানা গেছে, সাগরজলে সারি সারি করে নেমে পড়ছে বিমান। আবার উড়াল দেবেও সাগর জল ছুঁয়ে। এমনটা কল্পনা করা যায়, হা এমন কল্পনাকে দৃশ্যমান করতেই কাজ শুরু হচ্ছে কক্সবাজার বিমানবন্দরে।

বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে কক্সবাজার বিমানবন্দরে ৯০০০ ফুট রানওয়ে নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। সাথে আরো ১৭০০ ফুট রানওয়ে সম্প্রসারণ হবে। আর এই ১৭০০ ফুট রানওয়ে হবে বঙ্গোপসাগরের কক্সবাজার মহেশখালী চ্যানেলের উপরে।
দেশে প্রথমবারের মতো সমুদ্রের বুকে রানওয়ে নির্মাণে খরচ হবে পনের শত ৬৯ কোটি টাকা।
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেন, কক্সবাজার বিমান বন্দর নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনেক স্বপ্ন। এট একটা আন্তর্জাতিক রিজিওনাল হাট হিসেবে বিমানবন্দর ব্যবহার করা হবে এবং রিভারটিমিশনের মাধ্যমে এটার রানওয়ে আরও বৃদ্ধি করা হবে। ইতোমধ্যে কাজ শুরু হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখানে হবে
আন্তর্জাতিক টার্মিনাল, বিদেশি পর্যটক এখানে আসবে। ফলে এই দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড গতিশীলতা আসবে এসব কর্মকাণ্ডের মধ্যদিয়ে।
তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে পর্যটন ও অর্থনৈতিক বিকাশে আনবে বৈপ্লবিক পরিবর্তন।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির সফল বাস্তবায়ন এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে দেশের চতুর্থ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর যাত্রা শুরু করবে কক্সবাজার ।
সুত্র মতে, ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে ১০৫০০ ফিট। আর এই বিমানবন্দরের রানওয়ে হবে ১০৭০০ ফিট। তাই দেশের দীর্ঘতম রানওয়ে সমৃদ্ধ বিমানবন্দর হবে কক্সবাজার। যেখানে থাকবে সেন্ট্রাল লাইন, তাছাড়াও সমুদ্র বুকে ৯০০ মিটার পর্যন্ত হবে ফিশন এপ্রোচ লাইটিং আর এই বিমানবন্দর হবে এশিয়ার যোগাযোগের নতুনহাট। এমন অভিমত বিশ্লেষকদের।
এই প্রকল্পের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৯ আগস্ট ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৯০০০ ফুট থেকে ১০৭০০ ফুটের রানওয়ে বর্ধিত করণ কাজের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Categories