বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

সাংবাদিক শওকত মাহমুদের ৬৩তম জন্মদিন উদযাপিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১

সাংবাদিক শওকত মাহমুদের ৬৩তম জন্মদিন উদযাপিত

২৯ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএফইউজে-ডিইউজে কার্যালয়ে শওকত মাহমুদের ৬৩তম জন্মদিন উদযাপিত হয়।

বিএফইউজে’র মহাসচিব নুরুল আমিন রোকনের সঞ্চালনায় এসময় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- বিএফইউজের সভাপতি এম আবদুল্লাহ, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মোরসালিন নোমানী, বাংলাদেশ ফটোজার্ণালিস্ট এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি রফিকুর রহমান ও একেএম মহসিন ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক নূর উদ্দিন নুরু, বিএফইউজের সহকারী মহাসচিব শফিউল আলম দোলন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমান নির্বাহী সদস্য কাজী রওনাক হোসেন, ডিআরইউ’র সাবেক সভাপতি ইলিয়াস হোসেন ও রফিকুল ইসলাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরী, বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হাসান সোহেল, বিএফইউজের প্রচার সম্পাদক মাহমুদ হাসান, নির্বাহী সদস্য জাকির হোসেন, ডিইউজের সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলম, দফতর সম্পাদক ডি এম আমিরুল ইসলাম অমর প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ইয়ুথ জার্নালিস্টস ইউনিটি বিজুর সভাপতি ও ডিইউজের সদস্য মো: শরীফুল ইসলাম সহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, ডিইউজের সদস্যসহ সাংবাদিকগন।
শওকত মাহমুদ জাতীয় প্রেসক্লাবের চার বারের সাধারণ সম্পাদক ও দুই বারের সভাপতি এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র সাবেক মহাসচিব ও সভাপতি ছিলেন। তিনি ইকোনোমিক টাইমস এর সম্পাদক। বর্তমানে সম্মিলিত পেশাজীবি পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

বিএফইউজে সভাপতি এম আবদুল্লাহ বলেন, শওকত মাহমুদ সাংবাদিক সমাজের অহংকার। একইসঙ্গে বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় লেখা ও বলার অনন্য প্রতিভা রয়েছে তাঁর। প্রেসক্লাবে ১২ বছর এবং বিএফইউজেতে ৯ বছর শীর্ষ পদে নেতৃত্ব দিয়েও নিজের জন্য কিছু করেননি। ঢাকা শহরে তার এক ইঞ্চি জায়গা ও একটি ফ্ল্যাট নেই। সাংবাদিকদের কল্যাণে কাজ করাই তাঁর জীবনের ব্রত।

ইলিয়াস খান বলেন, শওকত মাহমুদ সাংবাদিক সমাজের জন্য যে অবদান রেখেছেন তার কাছাকাছিও অন্য কেউ রাখেননি। বহু সাংবাদিককে তিনি চাকরি দিয়েছেন। বিপদে আপদে সহায়তা করেছেন।

এসময় সকল বক্তা শওকত মাহমুদের দীর্ঘায়ু কামনা করেন। দ্য রিপোর্ট


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ