বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫৩ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

সরকারের সম্মতি পেলে নগরীতে ১০০০ শয্যার হাসপাতাল বানাবো: ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন

বাংলাদেশ প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১

সরকারের সম্মতি পেলে নগরীতে ১০০০ শয্যার হাসপাতাল বানাবো: ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন

নিজস্ব প্রতিনিধি:

সিআরবির সবুজ প্রকৃতির বুকে হাসপাতাল নির্মাণ ইস্যুতে বাঁশখালী টাইমসের উদ্যোগে ভার্চুয়াল আলোচনা সভা গত ২৭ জুলাই রাত ১০ টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।
‘সিআরবিতে নগরবাসী কী চায়’ শীর্ষক লাইভ আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে লন্ডন থেকে যুক্ত ছিলেন চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী ও চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এ.এইচ.এম জিয়া উদ্দিন।

বাঁশখালী টাইমসের সম্পাদক আবু ওবাইদা আরাফাতের গ্রন্থনা ও পরিকল্পনায় মাহবুব ছোবহান চৌধুরী ও আহসান হানিফের যৌথ সঞ্চালনায় লাইভ অনুষ্ঠানটি দেশ-বিদেশের অসংখ্য দর্শক-শ্রোতা উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানে অনুভূতি ব্যক্ত করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা নাফিজ মিনহাজ।
অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন বলেন- ‘সিআরবির সবুজ ভূখণ্ডে হাসপাতাল নির্মাণ হবে সরকারের আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। আমি আশা করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে সার্বিকভাবে অবগত হয়ে জনগণের পক্ষে সিদ্ধান্ত দিবেন। সরকারের সম্মতি পেলে আমি নগরীতে ১০০০ শয্যার হাসপাতাল করে দিতে রাজি আছি। বিভিন্ন দেশের অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশী আমার সাথে আছেন।

বক্তব্যে এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন- ‘হাসপাতাল করলে শুধু প্রকৃতির ইকোসিস্টেম ধ্বংস হবে না; মহান মুক্তিযুদ্ধের অকুতোভয় সৈনিকদের সমাধিস্থল নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। নগরবাসী চায় না বীর মুক্তিযোদ্ধাদের এই স্মৃতি ধ্বংস হোক। আমি মনে করি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এ প্রসঙ্গে ভুল বুঝানো হয়েছে।

এডভোকেট এ.এইচ.এম জিয়া উদ্দিন তাঁর বক্তব্যে বলেন- ‘সিআরবি ছাড়াও হাসপাতাল নির্মাণের যথেষ্ট জায়গা নগরীতে আছে। নগরবাসী প্রাণভরে নিঃশ্বাস নেয়ার মতো সুযোগ দিন দিন সংকুচিত হয়ে আসছে। সম্প্রতি বন্ধ হয়ে গেল নেভাল ২ খ্যাত অভয়মিত্র ঘাটও যেখানে বিকাল হলেই অসংখ্য নগরবাসী ছুটে আসতেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ