বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন

উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ : ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

/ ৯৪ /২০২১
প্রকাশকালঃ শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার।।

কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরে প্রভাবশালী হেলাল উদ্দিন মেম্বারের নেতৃত্বে পরিচালনায় সিন্ডিকেটের অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এঘটনায় ৭ জনের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ৩ জুন উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম মো. গোলাম সরওয়ার মোরশেদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। স্থানীয় হেলাল উদ্দিন মেম্বারসহ ৭ জনকে এই মামলায় আসামী করা হয়েছে।
অভিযোগে জানা যায়,
দীর্ঘদিন ধরে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯ নাম্বার ওয়ার্ডের মেম্বার হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চলছিল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের রমরমা ব্যবসা। মেম্বার হেলাল উদ্দিন স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় তার ছত্রছায়ায় এলাকার কতিপয় ব্যক্তিকে নিয়ে গড়ে উঠেছিল অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ সিন্ডিকেট। সিন্ডিকেটের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে উখিয়া থানাধীন ৪নং রাজাপালং ইউনিয়নের ৯ নাম্বার ওয়ার্ডের লম্বাশিয়া মার্কেটের সাতটি দোকান হতে পল্লী বিদ্যুৎ এর অনুমতি ব্যতীত পার্শ্ববর্তী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দোকানে পল্লী বিদ্যুতের মিটার হতে অবৈধ বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ স্থাপন করে অনৈতিকভাবে অর্থ উপার্জন করে আসছিল।
গত ১ মে থেকে ৩ জুন পর্যন্ত রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আরো দোকানে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ অব্যাহত রাখে।
সর্বশেষ ২ জুন বিকাল ৫টার সময় আরো অবৈধ বিদুৎ সংযোগ স্থাপনের কাজ চালানোর খবর পেয়ে উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম মোঃ গোলাম মোর্শেদ অভিযান চালায়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে মোহাম্মদ ইমাম উদ্দিন (৩৪ ) কে আটক করা হয়।
ধৃত ইমাম উখিয়া কুতুপালং পূর্ব পাড়া এলাকার মৃত আব্দুল করিমের ছেলে।
এই ঘটনায় উখিয়া থানায় উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম মোহাম্মদ গোলাম মোর্শেদ বাদী হয়ে ৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরও ৪/৫ জনকে আসামি দিয়ে উখিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। উখিয়া থানার মামলা নাম্বার-৭, তারিখ- ৩/৬/২০২১।
মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন-কুতুপালং পশ্চিম পাড়ার মৃত বখতিয়ার আহম্মেদ মেম্বারের ছেলে ও ৯ নাম্বার ওয়ার্ড মেম্বার হেলাল উদ্দিন (৩০), কুতুপালং পূর্ব পাড়ার আবুল হোসনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৩৮), কুতুপালং টিভি টাওয়ার এলাকার হাছন মিয়ার ছেলে আমির হোসেন (৩৫), কুতুপালং ক্যাম্পের কব্বুনিয়ার মো. ইউনুচের স্ত্রী সাবেকুন্নাহার (৩৬), কুতুপালং কব্ববুনিয়ার ছৈয়দ আহম্মদের ছেলে জসিম উদ্দিন (৩৫) ও কুতুপালং লম্বাশিয়ার গোলাম মোস্তফার ছেলে সামশুল আলম (৪৫)।
পরবর্তীতে আসামিদের দোকানে সংযোগকৃত পল্লী বিদ্যুতের মিটারের লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়।
উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম গোলাম সারোয়ার মোর্শেদ বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় কয়েকজন বাংলাদেশি নাগরিক বৈধভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে রোহিঙ্গাদের দোকানে ও ঝুপড়ি ঘরে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার অপরাধে ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।
ইতোমধ্যে প্রভাবশালী হেলাল উদ্দিন মেম্বারের নেতৃত্বে গঠিত বিদ্যুৎ চোর সিন্ডিকেট রোহিঙ্গাদের বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে বিপুল বিত্ত-বৈভবের মালিক বনে গেছেন। বর্তমানে উক্ত মামলা থেকে আসামিরা নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য বিভিন্ন মহলে তদবির চালিয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ ।
এমনকি তারা পুনরায় অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার জন্য নানা ফন্দি-ফিকির করছে বলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি উখিয়া জোনাল অফিস সুত্রে প্রকাশ।
উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহাম্মদ সঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে আদালতে একটি করা হয়েছে। মামলায়
অপরাপর আসামীদের গ্রেফতার অভিযান আব্যাহত আছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৮৬১,১৫০
সুস্থ
৭৮৮,৩৮৫
মৃত্যু
১৩,৭০২
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
৪,৮৪৬
সুস্থ
২,৯০৩
মৃত্যু
৭৬
স্পন্সর: একতা হোস্ট

Categories