মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

এক ব্যক্তির স্ত্রী ২৭ জন, সন্তান ১৫০ জন

ডেস্ক প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১

এক ব্যক্তির স্ত্রী ২৭ জন, সন্তান ১৫০ জন

কানাডায় বহুল পরিচিত ব্যক্তি উইনস্টোন ব্ল্যাকমোর। ৬৪ বছরের এই ব্যক্তির স্ত্রীর সংখ্যা ২৭। আর ছেলেমেয়ে রয়েছে ১৫০টি। বিশাল এই পরিবারের সদস্যরা সকলেই এক বাড়িতে থাকেন।

ওই পরিবারের সদস্য ১৯ বছরের মার্লিন ব্ল্যাকমোর সম্প্রতি নিজের এই বিশাল পরিবাররে কথা শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কারও জন্মদিনে কীভাবে উৎসব হয় তাদের বাড়িতে, এত সংখ্যক ভাইবোনের সঙ্গে স্কুলে যাওয়া, একসঙ্গে থাকা নিয়ে নানা অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন মার্লিন।

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ার বাউন্টিফুলে তার বিশাল পরিবারের সঙ্গে থাকেন মার্লিন। তিনি ছাড়াও তার দুই ভাই মুরারি এবং ওয়ারেনও নিজেদের পরিবারের কথা শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এত জনের সঙ্গে থাকা যেমন মজার, তেমনই অস্বস্তিরও- ওই তিন জনের পোস্টে উঠে এসেছে সেই বিষয়টিও।

মার্লিন জানিয়েছেন, ১৫০ জন ভাইবোনের মধ্যে সবথেকে বড়জনের বয়স ৪৪ বছর। সবথেকে ছোটজনের বয়স ১ বছর। প্রত্যেকে তাদের গর্ভধারিণী মাকে ‘মাম’ বলে ডাকেন। বাকি সৎ মায়েদের ডাকেন ‘মাদার’ বলে। একই দিনে একাধিক মায়ের সন্তান প্রসবের ঘটনাও এই বাড়িতে রয়েছে।

মার্লিন জানিয়েছেন, ভাইবোনেরা একই স্কুলে পড়ে। সেই স্কুলের মালিক তার বাবা উইনস্টোন। অস্বাভাবিক বড় পরিবারে নিজের ভাইবোনদের সামলাতে সামলাতে বাইরের কারও সঙ্গে তাদের সেভাবে বন্ধুত্ব গড়়ে ওঠেনি বলে জানিয়েছেন মার্লিন।

বাবা, ১৫০ ভাইবোন এবং ২৭ জন মাকে নিয়ে বিশাল পরিবারের সদস্যরা কেউ আলাদা থাকেন না। সকলেই একই বাড়িতে থাকেন। তাদের সেই বাড়ির নাম মোটেল হাউস।

এতো বড় পরিবারের জন্য বাজার থেকে জিনিস কেনাও কতটা সমস্যার তাও তারা হাড়ে হাড়ে টের পান। সেজন্য তাদের বাড়ির মধ্যেই শাকসবজির চাষ হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ