বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

১২ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনা ধামাচাপা দিতে ব্যাংক ম্যানেজার রেজাউলের অপপ্রচার!

এম আবু সিদ্দিক, বিশেষ প্রতিনিধি, চরফ্যাশন
প্রকাশকালঃ বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১

ভোলার চরফ্যাসন মধুমতি ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার রেজাউল কবিরের বিরুদ্ধে প্রায় ১২ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনা ধামাচাপা দিতে রাজনৈতিক নেতাদের জড়িয়ে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে।

এঘটনায় গত ১৪ জানুয়ারী বর্তমান ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ ইয়াসিন উদ্দিন সোহেল চরফ্যাসন থানায় সাধারন ডায়েরি করেন। মধুমতি ব্যাংকের বিপুল পরিমান টাকা আত্মসাতকারী রেজাউল কবির তার অপকর্ম ডাকতে গতকাল বুধবার ভোলা প্রেস ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলন করেন।

টাকা আত্মসাতকারী ওই সাবেক ব্যাংক ব্যবস্হাপক অতি সম্প্রতি সংবাদ সম্মেলন করে তিনি নিজেকে রক্ষা করতে ব্যর্থ চেষ্টায় অন্যদের ওপর কাল্পনিক ও অবাস্তব দায় চাপানোর কৌশলে লিপ্ত হন।
জানাযায়, চরফ্যাসন থানায় সাধারন ডায়েরির পর দূর্নীতিবাজ টাকা আত্মসাতকারী সাবেক ব্যবস্হাপক রেজাউল সংবাদ সম্মেলনে এক ব্যবসায়ির বিরুদ্ধে দৈনিক ৫/৬ কোটি টাকা নিয়ে যাওয়ার উদ্ভট অভিযোগ করেন।

অথচ বিভিন্ন সূত্রে অনুসন্ধানে জানা গেছে সাবেক ম্যানেজার রেজাউল কবির প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ভোলার গুইংঘার হাটে একটি গরুর খামারসহ প্রচুর সম্পত্তির মালিক। এছাড়াও, তিনি জেলা সদরের অনেক প্রভাবশালীদের নিকট সুদের উপর টাকা লগ্নী করেছেন। তার এক ভগ্নিপতি একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি। তার সহযোগিতায় উক্ত দুরভি সন্ধিমূলক সংবাদ সম্মেলন করার ঔদ্ধত্য দেখিয়েছেন বলে অনেকে জানিয়েছেন।

ব্যাংক সুত্রে জানাযায়, উক্ত ব্যাংকের ভোল্টে টাকা রাখার অনুমোদিত পরিধি মাত্র ১ কোটি টাকা। তাছাড়া বিধি বহির্ভূত কোন টাকা কাউকে দেওয়ার এখতিয়ার কোন ব্যাংক কর্মকর্তার নেই। এছাড়া যে কয়েকজন গ্রাহকের কথা তিনি উলেখ্য করেছেন তাদের কারোই উক্ত ব্যাংকের শাখায় কোন লোন একাউন্ট নাই।
এ প্রসঙ্গে বর্তমান মধুমতি চরফ্যাসন শাখার ব্যবস্থাপক মোঃ ইয়াসিন উদ্দিন সোহেল বলেন, ব্যাংক একটি সুরক্ষিত ও বিধিবদ্ধ আর্থিক প্রতিষ্ঠান। ব্যাংকে টাকা দুই ভাবে আত্মসাত করা যায় (এক) কোন গ্রাহক লোন নিয়ে তা পরিশোধ না করে আত্মসাত করা (দুই) ব্যাংকের কর্মকর্তা কর্মচারীর যোগসাজসে টাকা আত্মসাত করা। এর বাহিরে অন্য কারো বা সাধারন কোন গ্রাহকের পক্ষে টাকা আত্মসাতের কোন সুযোগ নেই। বর্তমান ম্যানেজার আরো বলেন, কোন ব্যাংকে ৫ হাজার টাকার অনিয়ম হলেও তা ব্যাংকের দায়িত্বশীল কর্মকর্তা-কর্মচারীর উপর বর্তায়।

তিনি আরও জানান, গত রবিবার সাবেক ম্যানেজার রেজাউলের টাকা আত্মসাতের বিষয়টি সমঝোতা করতে তার নিকট আত্মীয় জৈনক একজন ভোলার সাংবাদিকসহ তার কিছু স্বজন দু’দফা ব্যাংকের শাখায় এসেছিলেন। তাদের স্বজনরা টাকা আত্মসাতের সাথে জড়িত আছে এমন সন্দেহ হলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চরফ্যাসন থানায় ৭ জনকে আটক করা হয়েছিল।
চরফ্যাসন থানার ওসি মো. মনির হোসেন মিয়া জানান, নতুন পাশ হওয়া আইন অনুযায়ী টাকা আত্মসাতের মামলা গ্রহনের এখতিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশনের। এ ব্যাপারে ব্যাংকের নতুন ম্যানেজার জানান, ইতোমধ্যে বরিশালের দুদক কার্যালয়ে সাবেক শাখা ব্যবস্থাপক রেজাউলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা দেয়া হয়েছে। দ্রুত তার বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম শুরু হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ