মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৮৩ কম

ডেস্ক প্রতিবেদন
প্রকাশকালঃ শনিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২১

দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৮৩ কম

প্রথবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর অন্তত পাঁচ মাসের জন্য সুরক্ষিত থাকে বেশিরভাগ মানুষ। শুক্রবার এমনটাই দাবি করেছে ব্রিটেনের গবেষণা সংস্থা পাবলিক হেলথ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, গবেষণা দলটির প্রধান অধ্যাপক সুসান হপকিন্স বলেছেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকে কয়েক মাস। একবার আক্রান্ত হওয়াদের ঝুঁকি কমে অন্তত ৮৩ ভাগ।

গবেষণার এই তথ্য উদ্বেগ কমাতে পারে ব্রিটেনের অনেক স্বাস্থ্যকর্মীর। তবে করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পর আবারো আক্রান্ত হতে পারে কিছু মানুষ। তাই সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জিানিয়েছে গবেষকরা।

গবেষক সুশান হপকিন্স বলেন, যারা দ্বিতীয়বার করোনায় সংক্রমিত হয়েছে তাদের অনেকের শরীরে ভাইরাস ছিল উচ্চমাত্রায়। তবে তাদের কোনো উপসর্গ ছিল না। তারা সহজেই অন্যদের সংক্রমিত করতে পারে।

তিনি আরো বলেন, শরীরে কত দিন প্রতিরোধক্ষমতা থাকে তা বের করতে ১২ মাস স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যবেক্ষণ করে গবেষকরা। একবার করোনা হলে খুব কম ক্ষেত্রে আবার সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। কারণ করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তির শরীরে প্রতিরোধক্ষমতা তৈরি হয়ে যায়। তবে অন্যদের সংক্রমিত করার ঝুঁকি থাকে তার।

শরীরে অ্যান্টিবডি আছে এমন ছয় হাজার ৬১৪ জনের মধ্যে মাত্র ৪৪ জনের নতুন সংক্রমণের সম্ভাবনা ছিল। নমুনা পরীক্ষা করে গবেষকরা দেখেছে, প্রথম সংক্রমণের ৯০ দিনের বেশি সময় পর আবার সংক্রমিত হয়েছে তারা। কিছু গবেষণা এখনো চলছে। এসব গবেষণার মাধ্যমে আরও নতুন ফলাফল আসতে পারে।

ব্রিটেনে গেল বছরের জুন থেকে নভেম্বর পর্যন্ত প্রায় ২১ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীর নিয়মিত করোনা পরীক্ষা করা হয়। সংক্রমিত ও আগেও সংক্রমিত হয়েছে এমন মানুষকে এই পরীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। যাদের শরীরে করোনার কোনো অ্যান্টিবডি পাওয়া যায়নি, তারা ভাইরাসে সংক্রমিত হননি বলে ধরে নেওয়া হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে ৩১৮ জনের নতুন করে সংক্রমণের সম্ভাবনা দেখা দেয়।

লেইসেসটার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরাস বিশেষজ্ঞ ড. জুলিয়ান ট্যাং বলেন, গবেষণার ফল স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য স্বস্তির। করোনা থেকে সেরে ওঠার পর টিকা খুব বেশি প্রভাব ফেলে না। খুব বেশি হলে প্রাকৃতিক প্রতিরোধক্ষমতা জোরালো করতে পারে টিকা। মৌসুমি ফ্লু’র টিকার ক্ষেত্রেও এমনটা হয়।

গবেষণার এই ফলাফল দ্বিতীয়বার সংক্রমণের আশঙ্কায় থাকা অনেক স্বাস্থ্যকর্মীর উদ্বেগ কমিয়ে দেবে বলে আশা করছে গবেষকরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ