রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন
বিশেষ ঘোষণাঃ
• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, টিকা নিন। • গুজব নয়, সঠিক সংবাদ জানুন। • দেশের কিছু জেলা, উপজেলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থান এবং বিশ্বের কয়েকটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরে (খালি থাকা সাপেক্ষে) প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। • আপনি কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে 'ফিল্ম ও মিডিয়া, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা' বিষয়ে পড়ছেন? বাংলাদেশ প্রতিবেদন আপনাকে দিচ্ছে 'ইন্টার্নশিপ'-এর সুযোগ। • আপনিও হতে পারেন সাংবাদিক! চলতি পথে নানা অসঙ্গতি, দুর্নীতি, কারো সফলতা বা যেকোনো ভিন্নধর্মী খবর (ছবি অথবা ভিডিও) পাঠাতে পারেন। • হটলাইনঃ +৮৮০ ১৯ ০৯ ৮৬ ২৬ ১৬ (হোয়াটসঅ্যাপ), • ই-মেইলঃ protibedonbd@gmail.com • গুগল, ফেসবুক ও ইউটিউবে আমাদের পেতে Bangladesh Protibedon লিখে সার্চ দিন।

এমপি পাপুলর ব্যাংক হিসাব কতগুলো?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশকালঃ রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০২০
পরিবারের সাথে এমপি পাপলু

এমপি পাপুলর ব্যাংক হিসাব কতগুলো? ইতিমধ্যে পাপুলসহ চার জনের ৬১৭টি ব্যাংক হিসাব জব্দ।

সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম ওরফে কাজী পাপুলসহ চারজনের ৬১৭টি ব্যাংক হিসাব জব্দ করার আদেশ দিয়েছে আদালত। এদের মধ্যে রয়েছেন তার স্ত্রী সংরক্ষিত আসনের এমপি সেলিনা ইসলাম, মেয়ে ওয়াফা ইসলাম ও শ্যালিকা জেসমিন প্রধান।

দুদকের মামলার পর ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যে তাদের আদালতে আত্মসমপর্ণের আদেশ দিয়েছিলেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ৯২টি তফসিলভুক্ত সম্পত্তি ক্রোক করার আদেশ দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশে এক সঙ্গে এক আদেশে এত বেশি ব্যাংক হিসাব জব্দ করার ঘটনা এটিই সর্বপ্রথম বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কৌঁসুলি মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর এসব তথ্য জানিয়েছেন। রোববার দুদকের একটি মামলায় মহানগর আদালত এই আদেশ দিয়েছেন।

এর মধ্যে কাজী পাপুল ১৪৮টি ব্যাংক হিসাব, স্ত্রী সংরক্ষিত আসনের এমপি সেলিনা ইসলামের ৩৪৫টি ব্যাংক হিসাব, মেয়ে ওয়াফা ইসলামের ৭৬টি হিসাব এবং শ্যালিকা জেসমিন প্রধানের ৪৮টি ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে।

অবৈধ সম্পদ এবং মানিলন্ডারিং আইনের মামলার তদন্ত চলার সময় দুদকের পক্ষ থেকে অ্যাকাউন্ট জব্দ এবং সম্পদ ক্রোক করার আবেদন করা হয়। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত এই আদেশ দেন।

এছাড়া এদিন অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের মামলায় কুয়েতে গ্রেফতার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা ইসলাম এবং মেয়ে ওয়াফা ইসলামের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশের আদালতে তারা আত্মসমর্পণ করলে শুনানি শেষে বিচারক এ আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, ২২ ডিসেম্বর বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ (ভার্চুয়াল) ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

বিগত ১০ ডিসেম্বর অবৈধ সম্পদ ও অর্থপাচারের মামলায় সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী এবং মেয়েকে ১০ দিনের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এ আদেশের পর তারা নিম্ন আদালতে গেলে, সেটি আদালতের ছুটি চলাকালে নাকি পরে হবে এ নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। পরবর্তীতে তারিখ পিছিয়ে ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন হাইকোর্ট।

এদিকে, গত ১০ ডিসেম্বর কাজী পাপুলের স্ত্রী ও মেয়ের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের অভিযোগ প্রতীয়মান হয়নি মর্মে প্রতিবেদন দেয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের এক উপপরিচালককে তলব করেন আদালত। আসন্ন ৪ জানুয়ারি আদালতে সশরীরে উপস্থিত হয়ে তাকে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলেছেন কোর্ট। এ বিষয়ে রুলও জারি করেন।

গত ২৬ নভেম্বর অবৈধ সম্পদ ও অর্থপাচারের মামলায় পাপুলের স্ত্রী এবং মেয়ে হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

গত ১১ নভেম্বর দুদকের উপ-পরিচালক মো. সালাহউদ্দিন বাদী হয়ে ২ কোটি ৩১ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদসহ ১৪৮ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে পাপুল, তার স্ত্রী সেলিনা ও মেয়ে ওয়াফাসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার অন্য আসামি হলেন- সেলিনার বোন জেসমিন প্রধান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ